যে ৫ খাবারে ডিএনএ ভালো থাকে

Print

বুড়িয়ে যাওয়া ঠেকাতে ডিএনএর যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। এমন কিছু খাবার আছে, যা খেলে ডিএনএর ক্ষয় রোধ করা যায়। খাবারে বাড়তি একটু জিঙ্ক যুক্ত করলে ডিএনএর ক্ষয় ঠেকানো যায়। জিঙ্কযুক্ত খাবার খেলে তাই বুড়িয়ে যাওয়ার গতি কমে। শরীরে জিঙ্কের ঘাটতি হলে রক্তে শ্বেতকণিকার ক্ষমতা কমে যেতে পারে। ফলে দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। বাদাম, শিম, দুগ্ধজাত পণ্যে জিঙ্কের পরিমাণ বেশি থাকে।
দেখে নিন আর যে পাঁচ খাবারে জিঙ্ক বেশি থাকে:

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার চিলড্রেনস হসপিটাল অকল্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের জ্যেষ্ঠ গবেষক জ্যানেট কিং বলেন, ‘খাবারে সামান্য জিঙ্ক বৃদ্ধি আমাদের শরীরে বিপাকীয় প্রক্রিয়ায় যে গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলে, তা দেখে আমরা আশ্চর্য হয়েছি। এ ফল জিঙ্কের প্রভাবের বিষয় নিয়ে নতুন পরিকল্পনা বিষয়ে আলোকপাত করে।’
শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয় মাইক্রো নিয়ট্রিয়েন্ট জিঙ্ক এবং জীবন টিকিয়ে রাখতেও দরকারি। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নিশ্চিত করতে কাজ করে এই উপাদান। বিশ্বজুড়ে অনেক বাড়িতে সাদা চাল আর পরিশোধিত আটা-ময়দা ব্যবহার করা হয়। এতে শক্তি জুটলেও জিঙ্ক থাকে কম। এতে ডিএনএর ক্ষতি হয়। জিঙ্কসমৃদ্ধ কয়েকটি খাবার সম্পর্কে জেনে নিন:
ভেড়ার মাংসভেড়ার মাংস
ভেড়ার মাংসে যদিও চর্বির পরিমাণ বেশি, তবে তবে এটি জিঙ্কসমৃদ্ধ। ১০০ গ্রাম ভেড়ার মাংসে ৮ মিলিগ্রাম জিঙ্ক থাকে।
মাশরুমমাশরুম
ভিটামিন ও খনিজে ভরপুর। কয়েক ধরনের মাশরুম আছে, যাতে ক্যানসার প্রতিরোধী উপাদানও আছে। জিঙ্কের ভালো উৎস এটি।
গাঢ় চকলেটগাঢ় চকলেট
জিঙ্কের উৎস হিসেবে ডার্ক বা গাঢ় চকলেট খেতে পারেন। এতে অবশ্য উচ্চ ক্যালরি থাকে। ১০০ গ্রাম ডার্ক চকলেটে ৯ মিলিগ্রাম জিঙ্ক পাওয়া যায়।
কুমড়ার বীজকুমড়ার বীজ
কুমড়ার বীজ জিঙ্কের ভালো উৎস। এ ছাড়া এর অন্যান্য গুণও আছে। এটি ভালো ঘুমে ফল দেয়। এতে ওমেগা-৩ আছে, যা রক্তের চিনির মাত্রা ঠিক রাখে। ১০০ গ্রাম কুমড়ার বীজে ৭ মিলিগ্রাম জিঙ্ক থাকে।
কাজুবাদামকাজুবাদাম
খাবারের তালিকায় কাজুবাদাম রাখতে পারেন। এতে জিঙ্ক রয়েছে। ১০০ গ্রাম কাজুবাদামে ৫ মিলিগ্রাম জিঙ্ক পাওয়া যায়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 204 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ