রণাঙ্গনে ‘নিঃসঙ্গ বীর’ মোস্তাফিজ

Print

আইপিএলের প্রথম দিন মাঠে নেমেই ছন্দ হারিয়েছিলেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। তাকে নিয়ে শঙ্কা জেগেছিল- তবে কি সেই বলে বিস্ময় হারালের ফিজ। আর কি তিনি স্লোয়ার-কাটারে বিধ্বস্ত করতে পারবেন না ব্যাটসম্যানদের? তবে ক্রীড়ামোদীদের সেই শঙ্কা পরের ম্যাচেই উড়িয়ে দিয়ে নিজের সামর্থ্য আরও একবার জানান দিলেন সাতক্ষীরার এই
ক্রিকেটার।

আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য ত্রিদেশীয় ক্রিকেট সিরিজে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল টাইগাররা। ২৫৭ রানের মামুলি টার্গেট সহজের টপকে যাচ্ছিল কিউইরা। যেন কোনও প্রতিরোধই ছিল না তাদের সামনে। ম্যাচের ১৫ বল বাকি থাকতেই জয় তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড।
এদিন ফিল্ডাররা দারুণ তৎপর থাকলেও বল হাতে এতটুকু জ্বলে উঠতে পারেননি মাশরাফি-সাকিব-রুবেল-মিরাজরা। তবে ভিন্ন ছিলেন শুধু মোস্তাফিজ। কিউই শিবিরে প্রথম আঘাতটিও হানেন তিনি। রঞ্জিকে ২৭ রানে ফেরানোর পর ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার রস টেলরের মরণদূত হয়েও আবির্ভূত হন ফিজ। টেলর যখন আউট হলেন কিউইদের সংগ্রহ তখন ৩০ ওভার ৩ বল শেষে ৪ উইকেটে ১৪৭। বাংলাদেশের জন্য আশা জাগানিয়াই বটে।
কিউই ব্যাটসম্যানরা যদি এতটুকু বিপাকে পড়েন তবে সেটির কারণ মোস্তাফিজই। এদিন প্রথম ৭ ওভারে মাত্র ২১ রান দেন তিনি। পান ২ উইকেট। সব মিলে ৯ ওভারে দেন ৩৩ রান। যেখানে নির্ধারিত ১০ ওভারে সাকিব ৫০, রুবেল ৫৩; ৮ ওভারে মিরাজ ৪৫ ও ৬ ওভার ৩ বলে অধিনায়ক মাশরাফি দিয়েছেন ৫৮ রান।
ম্যাচ শেষে মাশরাফির মুখেও ফিজের প্রশংসা। করবেনই বা না কেন, কাল বল হাতে তো একাই লড়েছেন ফিজ। দেখিয়েছেন ক্যারিশমাও। চিনিয়েছেন নিজের জাত। ওয়ানডে ক্রিকেটে ক’জন পেসার আছেন যারা এমন স্পেল করেন, এভাবে স্কোয়ার কাটারে সবর্দা ব্যাটসম্যানদের চাপে রাখতে পারেন। হাতে গোনাদের মধ্যে সেটি ভালো করেই পারেন ফিজ। সেটি ডাবলিনের সবুজ গ্যালারি আরও একবার দেখার সুযোগ পেল।
এদিকে মোস্তাফিজের এমন বোলিংয়ের পর হায়দরাবাদও হয়তো আফসোস করছে। কেন তাকে আরেকটি ম্যাচ খেলার সুযোগ দেয়া হলো না- এটি অনেকেরই প্রশ্ন। অথচ এই মোস্তাফিজের কল্যাণেই গেল বছর আইপিএল শিরোপা ঘরে তুলেছিল ওয়ার্নার বাহিনি। অথচ কোলালিফাইয়ার ম্যাচে কেকেআরের কাছে একই দিন হেরেছে হায়দরাবাদ। কাল ডাবলিনে মোস্তাফিজের এমন ম্যাজিকেল বোলিংয়ের পর সেই ওয়ার্নারই হয়তো চোখ বন্ধ করে ভাবছেন- ‘কি রত্নই না হেলায় হারালাম’!

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 276 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ