রাজশাহীতে বাণিজ্যে নতুন দিগন্ত, আধুনিক স্থাপত্যে অনন্য ‘থিম ওমর প্লাজা’

Print

আধুনিক স্থাপত্যর অনন্য নাম ‘থিম ওমর প্লাজা’। বিশ্ব প্রযুক্তির সর্বশেষ ব্যবহারে আধুনিক ১০তলা ভবনটি নির্মিত হচ্ছে নগরীর নিউমার্কেট এলাকার উত্তর পাশে। কাঠামোগত নির্মাণ শেষে। ফিনিশিং কাজ চলছে। আধুনিক ভবনটি বর্তমান রাজশাহী মহানগরীর সবচেয়ে বড় ও সর্বাধুনিক স্থাপত্য নিদর্শন।

নতুন রাজশাহী নির্মাণে থিম ওমর প্লাজা আধুনিকায়নের দিকে রাজশাহীকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন।

বিশ্ব প্রযুক্তির সর্বশেষ ব্যবহার করা হয়েছে ভবনটিতে। উন্নত বিশ্বে ব্যবহৃত হওয়া আধুনিক লিফট ভবনটিতে সংযোজন করা হয়েছে। সাধারণ লিফটগুলোতে বিদ্যুৎ চলে গেলে ভেতরে থাকা মানুষগুলোকে সমস্যায় পড়তে হয়। তবে থিম ওমর প্লাজায় থাকছে না সেই সমস্যা। গ্রাউন্ড ফ্লোর থেকে টপ ফ্লোর পর্যন্ত ভবনটিতে তিনটি পয়েন্ট থাকছে। লিফট চলমান অবস্থায় যদি বিদ্যুৎ চলে যায় তাহলে ওই তিন পয়েন্টের যেটির কাছে লিফটি থাকবে সেখানে নিজস্ব শক্তিতে লিফট গিয়ে থামবে। থাকবে না আটকে পড়ার ভয়। ক্যাপসুল লিফট ও এক্সেলেটরগুলো আনা হয়েছে বিশ্ব বিখ্যাত সানি কোম্পানির। যেগুলো জাপানি টেকনোলজিতে তৈরি।

থিম ওমর প্লাজা কর্তৃপক্ষ জানায়, ভবনটি দুই ভাগে ভাগ করে নির্মাণ করা হয়েছে। এরমধ্যে গ্রাউন্ড ফ্লোর থেকে ষষ্ঠতম ফ্লোর পর্যন্ত বাণিজ্যিক। সপ্তম থেকে নবম ফ্লোর পর্যন্ত আবাসিক। ক্রেতাদের সুবিধার কারণে বিভিন্ন ফ্লোর নির্ধারিত পণ্যের জন্য ভাগ করে দেয়া আছে। গ্রাউন্ড ফ্লোরে থাকবে এটিম বুথ, ব্রান্ড ওয়াচ ও ডিপাটমেন্টাল স্টোর, প্রথম ও দ্বিতীয় ফ্লোরে রেডিমেড গারর্মেন্টের দোকানের জন্য নির্ধারণ, তৃতীয় ফ্লোরটি শাড়ী ও থান কাপড়ের জন্য, চতুর্থ ফ্লোরটি সু ও জুয়েলারি, পঞ্চম ফ্লোরের জন্য মোবাইল ও ইলেকট্রনিক্স, ষষ্ঠ তলায় থাকবে ফুড কোর্ট ও ইনডোর অ্যামিউজমেন্ট পার্ক। এরপরের তিনটি ফ্লোর হবে আবাসিক।

ভবন নির্মানের প্রতিটি ম্যাটেরিয়াল গুণগতমানের। ঢালাইয়ের কাজে ব্যবহার করা হয়েছে ব্লাক স্টোন। যেগুলো ভারত থেকে আনা হয়েছে। বিদ্যুৎ সাপ্লাইয়ের সমস্ত সরমঞ্জাম নিয়ে আসা হয়েছে ইতালি থেকে। বিদ্যুৎ সাপ্লাইয়ের জন্য বাশবার ব্যবহার করা হয়েছে। বিদ্যুৎ চলে গেলে জেনারেটর ও সেন্ট্রাল এসি সিস্টেমও নিয়ে আসা হয়েছে ইতালি থেকে। থিম ওমর প্লাজার প্রতিটি ফ্লোরে ব্যবহার করা হয়েছে মিরর পলিস টাইলস।

আসাসিক ফ্লোরগুলোতে রয়েছে পর্যাপ্ত আলো ও বাতাসের সুবিধা আছে। এসব আবাসিক ফ্লাট এক হাজার ১৮০ স্কায়র ফিট থেকে শুরু করে দুই হাজার ৪০০ স্কায়ার ফিট। আবাসিক ফ্লাটে থাকা মানুষের সুবিধার জন্য টপ ফ্লরে থাকছে নামাজের ব্যবস্থা। সেই সঙ্গে থাকছে একটি কমিউনিটি স্পেস। যারা আবাসিক ফ্লাটের মালিক হবেন তাদের আত্মীয়-স্বজনদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য কমিউনিটি স্পেসটি ব্যবহার করতে পারবেন।

থিম ওমর প্লাজা কর্তৃপক্ষ জানায়, ভবনটি নির্মাণের সময় ৯৫ ফিট পাইলিং করা হয়েছে। ভবনটি শক্তিশালী ভূমিকম্পরোধক। সর্বাধুনিক স্থাপত্য শৈলীটি রিখটার স্কেলে ৮ দশমিক ৫ বা তার উপরে ভূমিকম্পরোধক।
দেশে বিদেশের অভিজ্ঞ আর্কিটেক্ট, প্রকৌশলীগনের সরাসরি তত্ত্বাবধানে নির্মিত ভবনটির স্থাপত্য নকশা রাজশাহী শহরের আবহাওয়ার সাথে খাপ খাইয়ে প্রস্তুত করা। থাকছে পর্যাপ্ত গাড়ী পার্কিং সুবিধা।

আরো সুবিধার মধ্যে আছে, উচ্চ গতিসম্পন্ন ইন্টারনেট সুবিধা ও স্ট্যান্ডবাই জেনারেটর, নিজস্ব সাব-স্টেশন। বাণিজ্যিক ও আবাসিকের জন্য থাকছে অত্যাধুনিক অগ্নিনির্বাপন ব্যাবস্থা ও ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার মাধ্যমে সার্বক্ষনিক নিরাপত্তা।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 83 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ