রাজাপুরের ইউপি চেয়ারম্যান কামালের আক্কেল সেলামী!

Print

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি:: মহাসড়কে জটলা ছাড়াতে গিয়ে এক অটোচালক কে ধাক্কা দেয়ার র‌্যাবের এক গোয়েন্দা সদস্যকে চর মেরে আক্কেল সেলামী দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান কামাল সিকদার। এহেন অপ্রীতিকর আচারনের জবাবে র‌্যাব সদস্যরা প্রকাশ্য জনসম্মুখে মঠবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কামালকে উত্তম-মাধ্যম দিয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানিয়েছে। শুক্রবার বিকালে জেলার রাজাপুরে বাগড়ি ঝালকাঠি-খুলনা আঞ্চলিক মহাসড়কে ক্ষমতার বাহাদুরী দেখাতে গিয়ে চেয়ারম্যানের এ আক্কেল সেলামী দেয়ার বিষয়টি বহু মানুষ প্রত্যক্ষ করেছে বলে সূত্রে জানাগেছে।
সূত্র জানায়, ঝালকাঠি-খুলনা আঞ্চলিক মহাসড়কের বাগড়ি বাজার নামক স্থানে বেশ কয়েকটি টমটম ও অটোচালক এলোমেলো গাড়ী ঢুকিয়ে দিলে রাস্তায় জটলা পাকিয়ে যায়। এ সময় সাদাপোশাকে র‌্যাবের গোয়েন্দা টিমের একটি গাড়ীও আটকা পারে। তাই জটলা ছাড়াতে র‌্যাবের ডিএডি জাহিদ গাড়ী থেকে নেমে অটোরিক্সা চালককে ধমক ও ধাক্কা দিয়ে রাস্তা থেকে সড়িয়ে দিতে চেষ্টা করেন।
এ সময় পথচারি মঠবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কামাল ঘটনাস্থলে এসে সাদাপোষাকে থাকা র‌্যাব সদস্য ডিএডি জাহিদকে থাপ্পর মারে। মূহূর্তেই র‌্যাবের ডিএডি জাহিদসহ অন্য সদস্যরা চেয়ারম্যান কামালকে ঘিরে ফেলে উত্তম-মাধ্যম দেয়। এসময় ঘটনাস্থলে সোহাগ গাজী, মামুন ফরাজী, সেলিম খান, খোকন মল্লিক, জুয়েল সিকদার ও সবুর সহ কয়েকশ মানুষ জড়ো হয়ে যায়।
এ অবস্থায় চেয়ারম্যান কামাল কে তারা বরিশাল র‌্যাব-৮ এর কার্যালয়ে নিয়ে আসতে চাইলে বিষয়টি রাজাপুর উপজেলা সদরে ছড়িয়ে পরে। খবর পেয়ে উপজেলার নারী ভাইসচেয়ারম্যান লাইজু সহ আওয়ামীলীগের কয়েক নেতা ছুটে আসে। তারা চেয়ারম্যান কামালকে দিয়ে ভূল স্বীকার করিয়ে র‌্যাব সদস্যদের কাছে মাপ চাওয়ালে এবারের মতো রেহাই পায়।
এ ব্যাপারে মঠবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কামাল সিকদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে তেমন কোন ঘটনাই ঘটেনি। সামান্য কথা কাটাকাটি হলেও বিষয়টি ঘটনাস্থলে বসেই সমাধান হয়ে গেছে। ওনারা তো সাদা পোষাকে ছিল বলে তাই ভূল বোঝাবুজি হয়েছে তবে এখানে আমি বা র‌্যাব সদস্যরা কেউই কারো গায়ে হাত তুলিনি।
এ ব্যাপারে ডিএডি জাহিদ জানায়, বাগড়ি বাজারে গাড়ির জটলা সরাতে নেমে আমি কয়েকজন চালককে ধমক দিলে হঠাৎ করে চেয়ারম্যান কামাল এসে আমার গায়ে হাত তোলে। এসময় আমাদের গাড়ীতে বসা স্যার তাকে আমাদের সাথে নিয়ে যেতে বললে ঘটনাস্থলে উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান সহ গন্যমান্যদের অনুরোধে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 102 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ