রাজাপুরে জুয়ার আসর থেকে আটক ৫ জুয়াড়ি

Print

ওসি মুনিরের দ্বিগুন মুনাফা লাভ
রাজাপুরে জুয়ার আসর থেকে আটক ৫ জুয়াড়ি ভ্রাম্যমান আদালতে প্রত্যেককে ৫দিনের সাজা


আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি:: ঝালকাঠির রাজাপুরে জুয়াড় আসর থেকে প্রায় দেড়লাখ টাকাসহ ৫ জুয়াড়ি আটকের পর মাত্র সাড়ে ৪হাজার টাকা, ২ সেট তাস ও একটি পাটি জব্দ তালিকা দেখিয়ে মোবাইল কোর্টে সোপর্দ করে আটককৃতদের ৫ দিনের লঘুদন্ডা পাইয়ে দেয়ার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠেছে। জুয়ার কোর্ট থেকে পাওয়া টাকা হজম করে উল্টো আটককৃতদের স্বজনদের কাছ থেকে নগদ অর্থের বিনিময়ে এই লঘুদন্ড পাইয়ে দিয়ে ওসি মুনির উল গিয়াস দ্বিগুন মুনাফার হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগে জানাগেছে।
নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, শনিবার রাতে পূর্বইন্দ্রপাশা গ্রামে পুলিশ অভিযান চালিয়ে জুয়ার আসর থেকে প্রায় দেড়লাখ টাকাসহ সাউদপুরা গ্রামের মামুন (৩৫), পশ্চিম ইন্দ্রপাশা গ্রামের জামাল (৩৮) ও ইন্দ্রপাশা গ্রামের সোহরাব (৩২)সহ জুয়ারুকে আটক করে থানায় আনেন। পরে পূর্ব থেকেই ওসি গনিষ্ট খ্যাত রাজাপুরের বিতর্কিত চরিত্রের হাইব্রিড এক মহিলালীগ নেত্রীর সহযোগীতায় ওসি মুনিরের সাথে গোপন সমঝোতা সম্পন্ন হয়। সে অনুযায়ী আটক জুয়াড়িদের রাতেই তাদের থানা থেকে ছেড়ে দেয়ার কার্যক্রম নেয়া হলেও কয়েক সংবাদিক থানায় ফোন দিয়ে বিষয়টি জানতে চাইলে বিপত্তি বাধে।
সূত্র আরো জানায়, এ অবস্থায় রাজাপুর উপজেলায় ‘আইনের মধ্যে থেকে বেআইনী মুনাফা লাভে দক্ষ বলে’ খ্যাত ওসি মুনির আটককৃতদের লগু দন্ড পাইয়ে দেয়ার শর্তে অনুযায়ী রবিবার সাড়ে ৪হাজার টাকা, ২সেট তাস ও একটি পাটিসহ সামান্য জব্দ তালিকা দেখিয়ে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করে। আদালত প্রত্যেককে ৫দিন করে কারাদন্ড প্রদান করলে লঘুদন্ডের ব্যবস্থার করার মাধ্যমে নগদ মুনাফা হাতিয়ে নিজে ধোয়া তুলসিপাতা থাকার চেষ্টা করেন। তবে অভিযানকালে উপস্থিত থাকা কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী দেড়লক্ষাধিক টাকা জব্দ করতে দেখে ফেলায় ও সামান্য জব্দ তালিকা সহ ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করার বিষয়টি সাংবাদিকসহ এলাকাবাসীর মধ্যে জানাজানি ও ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হওয়ায় বেড়িয়ে পরে থলের বেড়াল।
প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বে টক্কনাথ (তক্ষক) কেলেংকারী, স্বর্নালংকার চোর বিএনপি নেতার ভাতিজিকে ছেড়ে দেয়া, অপহৃত স্কুল ছাত্রী হাফিজাকে আসামী পক্ষের জিম্মায় পেতে সহায়তা, হাফিজার খোজ নেয়ায় বীবন বীমা কর্পেরেশন এর কর্মী এক তরুনকে থানায় আটকে রাখা, কলেজ ছাত্র নির্যাতন ও মুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলার আসামীদের আত্মসমর্পনে সহযোগীতা ও রিমান্ডে জাামাই আদরসহ এন্তার অভিযোগ উঠেছে ওসি মুনিরের বিরুদ্ধে। যশোর বিএনপির সাবেক ক্যাডার বর্তমানে রাজাপুর থানার ওসি মুনির আইনের পোশাকের দাপটে অর্থশালী বিএনপি-জামায়াত নেতাদের তোষন ও স্থানীয় আ’লীগের নব্য একটি অংশের সাথে আতাঁত করে এসব অপরাধ ও দূর্নীতির মাধ্যমে আর্থিক বানিজ্যে লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগকারীরা জানায়। তবে তার আক্রোশে পড়লে মূহুর্তে নিরপরাধ ব্যক্তিকে অপরাধী ও মামলামলা ডুকিয়ে নির্যাতন নিত্যদিনের ঘটনা বিধায় প্রকাশ্যে কেউ মুখ খোলেনা বলে একাধিক ভূক্তোভুগী জানান।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 68 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ