রাজীবপুরে শিশু ধর্ষিত, হাসপাতালে যেতে দেওয়া হচ্ছে না!

Print

রাজীবপুরে শিশু ধর্ষিত, হাসপাতালে যেতে দেওয়া হচ্ছে না!

কুড়িগ্রামের রাজীবপুরে দুর্গম চরে দিনমজুর ঘরের ৫ম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। চরম অসুস্থ্ অবস্থায় বাড়িতে কাঁতরাচ্ছে। শিশুটির বাবা বাড়িতে নেই। এ অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে আজ বুধবার সকাল ৯টার দিকে ধর্ষকের লোকজন তাতে বাধা দিয়ে বাড়িতে ফেরত পাঠিয়েছে। এ অবস্থায় শিশুটিকে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
এর আগে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার চরসাজাই মণ্ডল পাড়া গ্রামের দিনমজুর মহিজলের কন্যা ৫ম শ্রেণির ওই শিশুকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে জয়নাল আবেদিন (৫০) নামের এক স্কুল শিক্ষক। ধর্ষণের পর থেকে শিশুটি অসুস্থ্। নির্যাতিত শিশুটির বাবা মহিজল ইসলাম ঢাকায় একটি চাতালে শ্রমিকের কাজ করে বলে জানা গেছে।
নির্যাতিত শিশুটি চরসাজাই মন্ডল পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী। একই স্কুলের শিক্ষক জয়নাল আবেদিন ওই দিন বাড়িতে একা পেয়ে শিশুটির ওপর নির্যাতন চালায়। শিশুটির চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে আসে। এসময় লম্পট শিক্ষককে আটক করলেও প্রভাবশালী হওয়ার কারনে ধর্ষক আটকে রাখা যায়নি।
নির্যাতিত শিশুটির চাচা রইচ উদ্দিন মোবাইল ফোনে বলেন, হাসপাতালে নেয়ার জন্য বাড়ি থেকে বাইর হওয়ার পর জয়নাল মাস্টারের লোকজন সামনে আইসা দাঁড়ায়। কয় হাসপাতালে নেয়ার দরকার নেই। স্থানীয়ভাবে মীমাংশা হতে হবে। এ নিয়া যে বেশি বাড়বাড়ি করবে তার অবস্থা আরো খারাব হবে। পরে আমাদের বাড়িতে ফেরত পাঠিয়ে দেয় তারা। মেয়ের বাবাও বাইত্তে নাই। মেয়ের বাবা ঢাকা থিকা রওনা দিছে।
এ ব্যাপারে রাজীবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পৃত্থিশ কুমার সরকার জানান, এ ধরণের অভিযোগ কেউ আমাদের জানায়নি। তাই কিছু বলতে পারছি না।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 178 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ