রাবির কৃষি প্রকল্প শ্রমিকদের কর্মবিরতি

Print

আহমেদ ফরিদ, রাবি প্রতিনিধি: মজুরী বৃদ্ধির দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় (রাবি) কৃষি প্রকল্পের শ্রমিকেরা। মঙ্গলবার সকাল ৮ টা থেকে কাজ বন্ধ রেখে কৃষি প্রকল্প ১ নং গুদামের সামনে অবস্থান নেন তারা।
এদিকে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কৃষি প্রকল্প কর্মকর্তারা শ্রমিকদের সাথে দেখা করেন। এসময় শ্রমিকরা ১৮ তারিখের মধ্যে মজুরী বৃদ্ধির সময়সীমা বেঁধে দেন এবং কাজ না করে বাড়ি ফিরে যান।
শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বিশ^বিদ্যালয়ের ৮ ঘন্টা কাজের জন্য দিনমজুরী ধার্য্য আছে ৪৫০ টাকা। সেখানে কৃষি প্রকল্পের শ্রমিকেরা ১৬ ঘন্টা কাজ করলেও তারা পাচ্ছে মাত্র ২৩০ টাকা। শ্রমিকদের এই ১৬ ঘন্টায় প্রথম ৮ ঘন্টার জন্য জন প্রতি ১৬০ টাকা ধার্য করা আছে। বাড়তি ৮ ঘন্টা কাজের জন্য তারা পায় ৭০ টাকা। কিন্তু অন্য বিভাগের শ্রমিকেরা মাত্র ৮ ঘন্টা কাজ করেন সেখানে দেওয়া হচ্ছে ৪৫০ টাকা।
শ্রমিকরা দাবী, যেভাবে জিনিস পত্রের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে একজন শ্রমিকের পক্ষে এই স্বল্প টাকায় দৈনন্দিন জীবন পরিচালনা করতে পারছেন না তারা।
জানতে চাইলে শ্রমিক নেতা মসের উদ্দিন বলেন, ‘কৃষি প্রকল্পের অধীনে প্রতিদিন আমরা ২৪ জন শ্রমিক কাজ করি। আমাদের জন্য বিশ^বিদ্যালয় থেকে আলাদা ভাবে কোন বাজেটের প্রয়োজন হয় না। এখান থেকে যে টাকা আয় হয় সেটা থেকে শ্রমিকদের বেতন দেওয়া সম্ভব।’
তিনি আরও জানান, কাজ শেষে বাড়িতে গেলে প্রতিদিনই ‘নেই নেই’ শুনতে হয়। সন্তানদের লেখাপড়াসহ পরিবার চালাতে প্রতিনিয়তই বাধার সম্মূখীন হতে হয় তাদের।
শ্রমিকদের অভিযোগ, কৃষি প্রকল্প কর্মকর্তার কাছে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে দরখাস্ত দিলেও তারা কোন ধরনের পদক্ষেপ নেননি । এছাড়া কৃষি প্রকল্পের সভাপতির সাথে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে দেখা করতে চাইলেও তারা দেখা করেন নি।
জানতে চাইলে কৃষি প্রকল্প কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) প্রকৌশলী মো. এমরান আলী বলেন, সকালে ঘটনা শোনার পর শ্রমিকদের সাথে কথা বলে তাদেরকে কাজে ফিরতে বলেছি। কিন্তু তারা ১৮ তারিখ পর্যন্ত আমাদেরকে সময় বেঁধে দিয়েছে। এর মধ্যে মজুরী বৃদ্ধি না করলে তারা কাজে ফিরবে না বলে জানিয়েছে।
এসময় তিনি বলেন, বিশ^বিদ্যালয় উপ-উপাচার্যের সাথে কথা বলে তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 110 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ