রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ আনছে মালয়েশিয়ার জাহাজ

Print

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য মালয়েশিয়ার ত্রাণবাহী জাহাজ আগামী সপ্তাহে বাংলাদেশে আসছে। মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর নিপীড়নের শিকার হওয়া যেসব রোহিঙ্গা রাখাইনে আছে, তাদের জন্যও ত্রাণ বহনকারী জাহাজটি এখন ইয়াঙ্গুনের পথে।
কক্সবাজারের শিবিরে নতুন করে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখে কফি আনান কমিশনের অন্যতম সদস্য আই লুইন রাখাইনের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর জীবনযাপনকে ‘পশুরও অধম’ হিসেবে মন্তব্য করেছেন। এক শিশুর কাছে তিনি জানতে চেয়েছিলেন সে খেয়েছে কি না। তাঁর সামনেই শিশুটি অঝোরে কেঁদেছে।

আই লুইনকে উদ্ধৃত করে মিয়ানমারের অনলাইন দ্য ইরাবতী গতকাল শুক্রবার এই খবর জানিয়েছে। সহকর্মী ঘাশান সালামে ও উইন ম্রাকে সঙ্গে নিয়ে ও ইসলামিক সেন্টার অব মিয়ানমারের প্রধান আহ্বায়ক আই লুইন গত ২৮ থেকে ৩১ জানুয়ারি বাংলাদেশ সফর করে রোহিঙ্গাদের সম্পর্কে জেনেছেন ও শুনেছেন।
মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বারনামা ও সিঙ্গাপুরের টিভি চ্যানেল নিউজ এশিয়া শনিবার পৃথক খবরে জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের জন্য প্রায় ২ হাজার ২০০ টন ত্রাণ বহনকারী ‘নটিক্যাল আলিয়া’ নামের জাহাজটি গত শুক্রবার কুয়ালালামপুরের ক্লাং বন্দর থেকে যাত্রা শুরু করেছে। এটি মঙ্গল কিংবা বুধবার ইয়াঙ্গুনে পৌঁছাতে পারে।
সরকারের উচ্চপর্যায়ের এক কর্মকর্তা প্রথম আলোকে জানান, মালয়েশিয়ার ত্রাণবাহী জাহাজ নটিক্যাল আলিয়া ১০ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাংলাদেশে পৌঁছাবে। এরপর আন্তর্জাতিক সংস্থাসহ স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে ওই ত্রাণ রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিতরণ করা হবে।
বাংলাদেশে নতুন করে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি বর্ণনা করতে গিয়ে আই লুইন দ্য ইরাবতীকে বলেন, ‘যে জায়গায় তারা থাকছে, মানুষের কথা বাদ দিন, তা পশুদের জন্যও অযোগ্য। এক শিশুকে খেয়েছে কি না জানতে চাইলে সে শুধু কেঁদেছে।’

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 93 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ