রোগ নিরাময়ে হুমকি! নতুন ধরণের ডিএনএ গঠন নিয়ে ধেয়ে আসছে এলিয়েন ব্যাকটেরিয়া!

Print

মোঃ সানোয়ার হোসেন। সাধারণত প্রানী, উদ্ভিদ বা ব্যাকটেরিয়া(লিভিং অরগানিসম) এর ডিএনএ’র গঠন চারটি বেস পেয়ারে হয়ে থাকে, A,T,Cও G। এই চার ধরণের বেসকে মেডিকেল ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিঙয়ের ভাষা যথাক্রমে এডেনিন, থায়ামিন, সাইটোসিন ও গুয়ানিন বলে। এর মধ্যে যে সব ব্যাকটেরিয়া মানুষের শরীরে বাস করে তাদের মধ্যে উল্ল্যেখ যোগ্য হলো, ইশেরেকিয়া কোলাই ব্যাকটেরিয়া, স্ট্রেপটোফাইলি কোক্কি, আমেবিয়া ইত্যাদি। এসবের কারণে বিভিন্ন সক্রামক রোগ হয়ে থাকে। যাদের বিরুদ্ধে এন্টিবায়োটিক প্রয়োগ করতে হয়ে। মানুষের শরীরে এন্টিবায়োটিক প্রবেশ করে এন্টি বডি উৎপন্ন করে তা ব্যাকটেরিয়াকে নানা বায়োক্যামিকেল কৌশলে প্রশমন করে থাকে। তার মধ্যে একটি ব্যাকটেরিয়ার ডিএনএ কোড কপি করে তাকে ধ্বংশ করা অন্যতম। কিন্তু আশংখার বিষয় তো এখানেই! যেমন মাঝে মাঝেই চিকিৎসকরা রোগীকে বলে থাকেন যে আপনার ড্রাগ রেজিসটেন্স হয়েছে। অর্থাৎ সেই রোগির শরিরে থাকা নির্দিষ্ট ব্যাকটেরিয়া নির্দিষ্ট এন্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে ডিএনএ কোড কপি করে ব্যাকটেরিয়া এন্টিবায়োটিককেই নিঃষক্রিয় করে দেয়। কিন্তু তারো একটা সমাধাণ চিকিৎসা বিজ্ঞানী ও ঔষুধবীদরা বের করেছিলো। অথচ এখন যা ঘটতে চলেছে তা একেবারেই অপ্রত্যাশীত! ইশেরেকিয়া কোলাই (E.coli) নামে ব্যাকটেরিয়া তার ডিএনএ তে ঐ চারধরণের বেস পেয়ার ছাড়াও দুটি অজানা বেস বেয়ার ডেভেলপ করে ফেলেছে। ক্যালেফোর্নিয়ার স্ক্রিপস রিসার্স ইনিস্টিটিউটের প্রধাণ বিজ্ঞানী ফ্লোয়েড রমেজবার্গ এক গবেষণায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি ও তার গবেষক দল এই নতুন বেস পেয়ারের নাম দিয়েছেন X ও Y। এটি মূলত সিক্স লেটার সেমি সিনথেটিক বেস পেয়ার। যা কিনা এখন পর্যন্ত বিজ্ঞানীদের কাছে অজান। তাই প্রাথমিক পর্যায়ে বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছে এলিয়েন বেস পেয়ার। সম্ভবত ইশেরেকিয়া ব্যাকটেরিয়া এন্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে কঠিন তম অস্ত্র হিসেবেই ব্যাবহার করবে!

সূত্রঃ সিএনএন নিউজ

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 311 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ