রোনালদোর জোড়া গোল, শিরোপার দ্বারপ্রান্তে রিয়াল

Print

রোনালদো জোড়া গোল করলেন। আর রিয়াল মাদ্রিদ জিতল ৪-১ গোলে। ফলে লা লিগা জিততে হলে তাদের দরকার আর মাত্র ‌১ পয়েন্ট। বলা যায়, শিরোপা এখন তাদের হাতের মুঠোয়। বুধবারের এই ম্যাচে জিতে রিয়ালই এখন পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে।
দুই অর্ধে একবার করে জালে বল পাঠান রোনালদো। একটি করে গোল করেন করিম বেনজেমা ও টনি ক্রুস।

৩৭ ম্যাচে রিয়ালের পয়েন্ট ৯০। সমান ম্যাচে বার্সেলোনার ৮৭। ২০১২ সালের পর প্রথমবারের মতো লিগ শিরোপা জিততে শেষ ম্যাচে মালাগার বিপক্ষে আর ১ পয়েন্ট পেলেই চলবে রিয়ালের।
লিগে শেষ ৮ ম্যাচের ৭টিতেই হেরেছে সেল্তা, এর মধ্যে শেষ পাঁচটি আবার টানা। সেই দলকে হারাতে ঘাম ঝরাতে হয়েছে রিয়ালের। এই ম্যাচে গোল করে লিগের প্রতিটি ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠানোর অসাধারণ কীর্তি গড়ার পথে আরেকধাপ এগিয়ে গেল রিয়াল।
জানুয়ারিতে কোপা দেল রের কোয়ার্টার-ফাইনাল থেকে রিয়ালকে বিদায় করে দেওয়া সেল্তা বুধবার নিজেদের মাঠে পিছিয়ে পড়ে দশম মিনিটে। ইসকোকে এক খেলোয়াড়ের চ্যালেঞ্জ থেকে বল পেয়ে যান রোনালদো। ডি-বক্সের বাইরে থেকে তার বুলেট গতির শট খুঁজে নেয় জাল।
এগিয়ে যাওয়ার পর অন্য চেহারায় দেখা যায় জিদানের শিষ্যদের। স্বাগতিকদের আক্রমণ করার চেয়ে তারা ব্যস্ত ছিল নিজেদের রক্ষণ সামলানো নিয়ে। একের পর এক আক্রমণ করে রিয়াল শিবিরে ভীতি ছড়ায় সেল্তা।
৩৪তম মিনিটে ড্যানিয়েল ভাসের ফ্রি-কিক দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন কেইলর নাভাস। ইয়াগো আসপাস পুরোটা সময় পরীক্ষা নিয়েছেন রিয়ালের রক্ষণের। কিন্তু লক্ষ্যে রাখতে পারেননি একটি শটও, সব গেছে নাভাসের আশপাশ দিয়ে।
৪২তম মিনিটে রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তে পেনাল্টি বঞ্চিত হয় সেল্তা। রাফায়েল ভারানের হ্যান্ডবলে রেফারির সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে উল্টো হলুদকা্র্ড দেখেন আসপাস।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে পাল্টা আক্রমণ থেকে ব্যবধান বাড়ান রোনালদো। এতে বড় অবদান রয়েছে ইসকোর। তার দারুণ পাস থেকেই পর্তুগিজ অধিনায়কের শট বারের কোনায় লেগ জালে জড়ায়।
৬২তম মিনিটে ডাইভের দায়ে দ্বিতীয় হলুদ কার্ডে মাঠ ছাড়েন আসপাস। তবে ডি বক্সে ডাইভ দেননি এবারের আসরে ১৮টি গোল করা স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড। আবার সের্হিও রামোসের ফাউলও পেনাল্টির মতো ছিল না।
আগে থেকেই নিষিদ্ধ সেল্তার কোচ। ৬৫তম মিনিটে তার সহকারীকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। নাটকীয়তার মধ্যেই ৬৭তম মিনিটে ভাসের দারুণ শট ফিরিয়ে দিয়ে রিয়ালের ত্রাতা নাভাস।
দুই মিনিট পর জন গিদেত্তির শট একজনের গায়ে লেগে জালে জড়ালে ব্যবধান কমায় সেল্তা। ৭১তম মিনিটে মার্সেলোর কাছ থেকে বল পেয়ে অরক্ষিত বেনজেমার গোলে আবার ব্যবধান বাড়ায় রিয়াল।
৭৫তম মিনিটে অবিশ্বাস্য ব্যর্থতায় নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করতে পারেননি রোনালদো। ১০ মিনিট পর বেনজেমার আরেকটি বাজে ব্যর্থতায় বাড়েনি ব্যবধান।
১০ জনের সেল্তাকে চেপে ধরা রিয়াল ৮৮তম মিনিটে পেয়ে যায় চতুর্থ গোল। ক্রুসের বুলেট গতির শট ঠেকানোর কোনো উপায়ই ছিল না স্বাগতিক গোলরক্ষকের।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 133 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ