শামীম ওসমান সম্পর্কে আওয়ামীলীগ নেত্রীর অশালীন উক্তি

Print

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা মালার এমপি সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমানকে নিয়ে অশালীন উক্তিতে নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। বইছে নিন্দার ঝড়। মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহার উপস্থিতি এ অশালীন বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভারাইল হয়ে গেছে। ফলে বিষটি নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের জন্য অশনী সংকেত বলে মন্তব্য করছেন সাধারন মানুষ। মালার ব্ক্তব্যের অডিও ফেসবুকে প্রকাশ করা হয়। তাতে দেখা যায় শামীম ওসমানের মাকে নিয়ে খোকন সাহার সামনে গালি দেন মালা।
মুলত শামীম ওসমানের মাকে নিয়ে গালি দেয়ায় চরমভাবে ক্ষুব্ধ জেলার আওয়ামীলীগ ঘরনার অনেক রাজনৈতিক নেতা ও কর্মী। আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা বলছেন, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগকে ধ্বংস করতেই এইসব করা হচ্ছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৫টি আসনের সব কয়টিতে আওয়ামীলীগকে পরাজিত করতে বিশাল অংকের অর্থ নিয়ে মাঠে নেমেছে তৃতীয় একটি পক্ষ। তারা মনে করে নারায়ণগঞ্জ থেকে ওসমান পরিবারকে রাজনৈতিকভাবে শুন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে পারলেই মিশন সফল হবে। এই চক্রটির মিশনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে খোদ আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতাদের একটি অংশ। ফলে মহিলা যুবলীগের নতুন কমিটি নিয়ে শুরু হয় আওয়ামীলীগকে বিভাজন করার রাজনীতি। এক্ষেত্রে মিডিয়াতে নানা কুরুচিপূর্ন বক্তব্য দেয়ার পরও ওসমান পরিবারের নিরবতাকে তারা দূর্বলতা মনে করছে।

এই মাহমুদা মালা স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, “কাঁথা মুড়িয়ে শুইয়া রইছি, আসো” তার এই বক্তব্যও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়েও তীব্র বির্তকের সৃষ্টি করে। ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী বেশ কয়েকজন নেতা বলেন, একজন মেয়ে যখন বলেন কাঁথা মুড়িয়ে শুইয়া রইছি আসো, তখন এটা কি ইঙ্গিত করে। কোন ভদ্রঘরের মেয়েকি এভাবে শুইয়া থেকে কাউকে আসতে বলতে পারে? রাজনৈতিক অঙ্গন পতিতালয় নয়। মুখে যা আসবে তাই মিডিয়া ও যোগাযোগ মাধ্যমে বলা যাবে। যেহেতু আমাদের দলের একজন নেত্রী এর বেশীকিছু তারা আর বলতে চান না। বিএনপি, জামাত, ও তৃতীয় একটি পক্ষ আওয়ামীলীগকে নেতৃত্ব শুন্য করার খেলায় মেতে উঠেছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 172 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ