‘শিক্ষকদের এভাবে হত্যা করা হলে জাতি মেধাশূন্য হয়ে পড়বে’

Print

আহমেদ ফরিদ, রাবি: ‘শিক্ষকদের এভাবে হত্যা করা হলে জাতি মেধাশূন্য হয়ে পড়বে। আসলে সরকার, প্রশাসন আমাদের রক্তক্ষরণ, ব্যথা বোঝে না।’ বলে আক্ষেপ করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. শহীদুল্লাহ্।

বৃহস্পতিবার সকল ১০টায় রাবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধনে এ কথা বলেন ড. মো. শহীদুল্লাহ। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) অধ্যাপক ড. এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার ২০তম দিনেও রাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে।অধ্যাপক রেজাউল হত্যার বিচার দাবিতে রাবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন (2) 12.05

মানববন্ধনে শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক আনসার উদ্দীন বলেন, ‘শুধু সরকারের দিকে তাকিয়ে থাকলে হবে না। আমাদের নিজেদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, শক্তি সঞ্চার করতে হবে। মনে রাখতে হবে, রেজাউল করিমের মতো মানুষকে যখন খুন করা হয় তখন আমরা সবাই হত্যার উপযোগী। তাই আসুন আমরা সবাই এসব হত্যাকা-ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হই। তাছাড়া হত্যার মিছিল থামবে না।’

এ সময় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ফয়জার রহমান বলেন, ‘কতোদিন হয়ে গেল এ আন্দোলনের কোন ফল আমরা দেখতে পাচ্ছি না। জানি না, এ আন্দোলন কতদূর যাবে, নাকি স্থিমিত হয়ে যাবে। কারণ অতীতের হত্যা মামলাগুলোর পরিণতি আমাদের শঙ্কিত করে তোলে।’

দর্শন বিভাগের অধ্যাপক এস এম আবু বকর বলেন, ‘সভ্যতা আজ ধ্বংসের কিনারায় এসেছে। যারা খুন করছে তারা এ সমাজেরই অংশ। আর আমি সমাজের একজন হয়ে এ হত্যার দায় এড়াতে পারি না। যেখানেই হত্যা হবে সেখানেই আতঙ্ক, প্রতিহিংসা জাগ্রত হবে এবং মনুষত্ব ক্ষয় হবে। তাই এর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’

রাবি শিক্ষক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ইসমাইল হোসেনের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য দেন বাংলা বিভাগের প্রভাষক গৌতম গোস্বামী এবং ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল বিভাগের প্রভাষক দিলীপ কুমার সরকার। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মু. এন্তুাজুল হক, প্রক্টর অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ খানসহ দুই শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মানববন্ধনে যোগ দেয় ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন শেষে তারা একটি মৌন মিছিল বের করে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। পরে ‘মুকুল প্রতিবাদ ও সংহতি মঞ্চ’-এ সমাবেশ করে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 39 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ