সংযত হয়ে কথা বলুন

Print

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘আমি উনাকে (প্রধান বিচারপতি) একটা অনুরোধ করব, আল্লাহ আপনাকে প্রধান বিচারপতি বানিয়েছেন, সংযত হয়ে কথা বলুন। আপনি যদি রাজনীতি করতে চান, তবে আপনি হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্ট নিয়ে রাজনীতি করবেন না। সুপ্রিম কোর্ট, হাইকোর্টকে জনগণের মুখোমুখি দাঁড় করবেন না।’
মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদতবার্ষিকী ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বৃহত্তর ফরিদপুর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী কল্যাণ সমিতি এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘উনি (প্রধান বিচারপতি) কথা বলবেন একা, আমরা অনেক নেতাকর্মী, আমরা যদি কথা বলতে শুরু করি- তাহলে উনি কি টিকে থাকতে পারবেন? আমাদের দিয়ে বিচারব্যবস্থার সমালোচনা করাবেন না।’
প্রধান বিচারপতির অবসরের সময় আরো পাঁচ মাসের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পাঁচ মাস কি কারণে? তাকে পাঁচ মাস দেয়া কি ঠিক হবে? আপনারা ভেবে দেখেন এর আগে কিছু করা যায় কিনা।’
তিনি বলেন, ‘আমরা সুপ্রিম কোর্ট, হাইকোর্টকে অত্যন্ত সমীহের সাথে দেখি। যখন সারাজাতি শোকে মূহ্যমান, সেই সময় এই রায়টা উনি দিলেন, উনি বুঝতে পারলেন না- এর রিঅ্যাকশনটা কি হবে? উনি মনে করলেন, পাকিস্তানের মতো একটা রায় দিয়ে দেয়। যাতে সারাদেশে আলোচনা হয়।’
রায়ে সংসদ সদস্যদের অপরিপক্ক বলার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাকে যদি উনি বলেন- আমি একজন অপরিপক্ক সংসদ সদস্য। আমার মতো ৮০ বছরের একজন লোককে বলেন, অপরিপক্ক- তাহলে আমি বলব, তার মাথায় সমস্যা আছে। উনি যতবার রায় বাতিল করবেন, ততবার সংসদে ষোড়শ সংশোধনী পাস করা হবে।’
সমবায় মন্ত্রী বলেন, ‘ধমক দেয়, তার (প্রধান বিচারপতি) ধর্যের একটা সীমা আছে। আমি বলব, আমাদেরও একটা ধর্যের সীমা আছে। আমরা অনেক কিছু বলতে চাইলেও বলি না। কারণ সুপ্রিম কোর্টের প্রতি একটা শ্রদ্ধা আছে।’
‘বঙ্গবন্ধু সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারকে হত্যা তার বংশকে নিরবংশ করার প্রচেষ্টা, উনার লেভেলের মতো নেতা, দুইজন ভারতে ও একজন আমেরিকায় হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু উনার হত্যাটা ভিন্নমাত্রার।
বৃহত্তর ফরিদপুর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী কল্যাণ সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এসএম মুনীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন- খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল মতিন খসরু, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আহবায়ক ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, সদস্য সচিব শেখ ফজলে নূর তাপস প্রমুখ।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বৃহত্তর ফরিদপুর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম এ ওবাইদ হোসেন সেতু।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 344 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ