সরকারের এই আমলে ২২ ফাঁসির আসামি ক্ষমা পেয়েছে: বিএনপি

Print
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে সব রেকর্ড ভঙ্গ করে ফাঁসির আসামিকে দণ্ড থেকে রেহাই দেওয়া হয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক আসামি, যারা আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে জড়িত, তারা রাষ্ট্রপতির ক্ষমায় মৃত্যুদণ্ড থেকে অব্যাহতি পেয়েছে।
আজ মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী এসব কথা বলেন।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, এক পরিসংখ্যান বলছে, স্বাধীনতার পর এ পর্যন্ত মোট ২৫ জন মৃত্যুদণ্ডাদেশ পাওয়া আসামি রাষ্ট্রপতির ক্ষমা পেয়েছে। এর মধ্যে ২২ জন ক্ষমা পেয়েছে ‘অবৈধ ও ভোটারবিহীন’ এই সরকারের আমলে।
বিএনপির এই নেতা বলেন, এর আগে লক্ষ্মীপুরের বিএনপি নেতা নুরুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডে আওয়ামী লীগের নেতা আবু তাহেরের ছেলের ফাঁসি মওকুফের ঘটনায় দেশে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। নাটোরের আলোচিত গামা হত্যা মামলায় আদালত ২০ আসামির দণ্ড দিলেও রাষ্ট্রপতি দণ্ড মওকুফ করে মুক্তি দেওয়ার পর আওয়ামী লীগের নেতারা আসামিদের ফুল দিয়ে সংবর্ধিত করার দৃশ্য দেখে দেশবাসী হতবাক হয়েছে। নাটোরের বিএনপি নেতা ও উপজেলা চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ নুরের হত্যাকারীরাও সাজা মওকুফ পেয়ে এখন এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে চলেছে। এভাবে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের দণ্ড রাষ্ট্রপতি মওকুফ করে দেওয়ার ঘটনায় খুনিরা আরও উৎসাহিত হচ্ছে।
ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাডের সঙ্গে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরীর বৈঠক প্রসঙ্গ ও সরকার উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র প্রসঙ্গে সংবাদ সম্মেলনে করা প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, বিএনপি নয়, জনগণই এ সরকারকে উৎখাতের জন্য প্রস্তুত। সরকারকে উৎখাতে দেশে বা আন্তর্জাতিকভাবে কোনো ষড়যন্ত্রের দরকার নেই। বিএনপি ষড়যন্ত্রে বিশ্বাস করে না। এই সরকারের পতন এখন একেবারেই চূড়ান্ত পর্যায়ে। কারণ, যে সরকারের কোনো জনসমর্থন থাকে না, সে সরকার যেকোনো সময় পড়ে যেতে পারে। এ জন্য দেশে বা আন্তর্জাতিকভাবে কোনো ষড়যন্ত্রের দরকার নেই। তিনি দাবি করেন, এ-সংক্রান্ত প্রকাশিত সংবাদের ব্যাপারে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব (আসলাম চৌধুরী) বিবৃতি দিয়েছেন, প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
রিজভী বলেন, ‘বিএনপি জনগণকে নিয়ে রাজনীতি করে। বিএনপি একটি জনসমর্থনপুষ্ট দল। অন্যদিকে, আওয়ামী লীগ একটি জনবিচ্ছিন্ন দলে পরিণত হয়েছে। আমরা বারবার বলছি, শেখ হাসিনা নেমে যাক। তত্ত্বাবধায়ক সরকার আসুক। তখন দেখা যাবে কে জনপ্রিয় দল। বিএনপি কেন একটি পতিত সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে যাবে? এটা সম্পূর্ণ অসত্য, মিথ্যা ও বানোয়াট।’

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 21 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ