সারাদেশে বিএনপির বিক্ষোভে পুলিশের লাঠিচার্জ

Print

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ ১৪৮ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে দেশব্যাপি কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছে অর্ধশত বিএনপি নেতাকর্মী।
পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কয়েক রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুঁড়েছে পুলিশ।

শনিবার বেলা ১১টায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফিক এবং সাধারণ সম্পাদক আসিফ রহমান বিপ্লব এর নেতৃত্বে পুরান ঢাকার কোর্ট এলাকা, শাখারী বাজার মোড় এবং ভিক্টরিয়া পার্ক হয়ে ক্যাম্পাসের গেট দিয়ে মিছিল করার সময় এমন ঘটনা ঘটে। ছাত্রদলের হামলায় জবি শাখা ছাত্রদলের ৩ কর্মী আহত হয়েছে।
জবি ছাত্রদলের সভাপতি বলেন, ‘প্রধান বিচারপতিকে জোড় করে ক্ষমতাহীন করে বাংলাদেশের বিচার বিভাগকে কুক্ষিগত করে বেগম খালেদা জিয়ার নামে একের পর এক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গ্রেপ্তারি পরোয়ানা প্রত্যাহারের দাবিতে সকালে আমরা বিক্ষোভ মিছিল করেছি। এসময় আমাদের সংক্ষিপ্ত সমাবেশে হামলা করে কবি নজরুল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের বেশ কিছু নেতাকর্মী। এতে আমাদের কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সম্পাদক আর এ গনি মোস্তফাসহ আরো দুইজন আহত হয়েছেন।’
শনিাবর সকালে রাজধানী শাহবাগ মোড়ে মিছিল বের করে ঢাক বিম্ববিদ্যালয় ছাত্রদল। এছাড়া পল্টনে মিছিল করে ছাত্রদলে কেন্দ্রীয় ইউনিট। ঢাকার বাইরে, নরসিংদি, গাজীপুর, খুলনা, টাঙ্গাইল, রংপুর, বগুড়া, রাজশাহী, নাটোর, বাগেরহাট, চট্রগ্রাম, নোয়াখালি, ফেনী, কুমিল্লা, সিলেট, ও যশোরে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে দলটির নেতাকর্মীরা।
এদিকে বরিশালে বিএনপির মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। সেখান থেকে আটক করা হয়েছে সিটি করপোরেশনের কাউন্সিল মীর জাহিদুল কবিরসহ বিএনপির দুই নেতাকে। সমাবেশ চলাকালে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ছোট ছোট মিছিল এসে মিলিত হয় সমাবেশে। এসময় একটি অংশ মিছিল সহকারে সদর রোড অতিক্রমকালে পুলিশ তাদের বাঁধা দেয়। একপর্যায়ে পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে মিছিল করার চেষ্টা করলে পুলিশ লাঠিচার্জ ও ধাওয়া করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের অন্তত ১০ জন নেতাকর্মী আহত হন। এসময় পুলিশ ধাওয়া করে ২ জনকে আটক করে।
বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার সত্যরঞ্জন খাসকেল বলেন, ‘ওই স্থান থেকে ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বিএনপি নেতা মীর জাহিদুল কবির জাহিদকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া আর কাউকে আটক করা হয়েছে কিনা এখন পর্যন্ত জানা নেই।’
অন্যদিকে রাজশাহী নগরের লোকনাথ স্কুল মোড় থেকে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। তারা সোনাদীঘি মোড় হয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে যাওয়ার সময় ভুবন মোহন পার্ক মোড়ে পুলিশ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিলে বাধা দেয়। এতে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় বিএনপির নেতারা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে করে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সরিয়ে নেয়।রে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেত হয়ে নগর বিএনপির সভাপতি ও সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি মালেপাড়ার মোড়ের দিকে এগুতেই পুলিশ দ্বিতীয় দফায় বাধা দেয়। পুলিশের বাধায় তারা দলীয় কার্যালয়ের সামনে বসে পড়ে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 84 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ