সার্চ কমিটির উদ্যোগে আ.লীগ-বিএনপি আশাবাদী

Print

নির্বাচন কমিশনার পুনর্গঠন নিয়ে সার্চ কমিটির নানামুখী উদ্যোগে আশাবাদী হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক দলগুলো।
দেশবাসীর মধ্যে ফের এক ধরনের আশার সঞ্চার হয়েছে- রাজনীতিতে সঙ্কটের বরফ গলবে। সার্চ কমিটি ঘোষণার পর রাষ্ট্রপতির উদ্যোগে যে হোচট খেয়েছিল তা এখন অনেকটাই কেটে উঠতে শুরু করেছে।

সার্চ কমিটির ইতিবাচক উদ্যোগে প্রায় সব রাজনৈতিক দলই সাড়া দিয়েছে। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেয়া মোট ৩১টি রাজনৈতিক দলের মধ্যে ২৭টি দল সাড়া দিয়েছে। ২৫টি দল নির্বাচন কমিশনের জন্য নামের তালিকা দিয়েছে। বিশ্লেষকদের মতে এটা খুবই ইতিবাচক দিক।
এছাড়া নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও সংসদের বাইরে থাকা প্রধান বিরোধী দল বিএনপিসহ বেশ সক্রিয়ভাবেই সার্চ কমিটির কাছে নামের তালিকা জমা দিয়েছে। তারা গেল দুইদিন ধরে ধারাবাহিকভাবে দলীয় সভা করে এই তালিকা জমা দেন।
বিভিন্ন ইস্যুতে প্রধান দুটি দলের মধ্যে ব্যাপক মতপার্থক্য ও অমিল থাকলেও তাদের দেয়া নাম প্রস্তাবে অভিন্নতা পাওয়া গেছে। আর সেটা হচ্ছে তাদের প্রস্তাবিত ব্যক্তিদের সবাই অরাজনৈতিক ও পেশাজীবী। তাদের কেউই সরাসরি কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত নন।
প্রধান দুই দলের নেতাদের প্রতিক্রিয়াও বেশ ইতিবাচক। উভয় দলই নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে।
এ ব্যাপারে মঙ্গলবার বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সার্চ কমিটির উদ্যোগে আমরা আশাবাদী যে- তারা একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন উপহার দিতে পারবেন। তিনি এও বলেন, কমিশন নিরপেক্ষ হলে তারা নির্দ্বধায় মেনে নিবেন। এক্ষেত্রে তাদের তালিকার বাইরে থেকে স্বচ্ছ ও গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের নিয়ে গঠিত হলেও তাদের কোনো আপত্তি থাকবে না।
অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, রাষ্ট্রপতির প্রতি তাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। তাই তিনি যেভাবে যাদেরকে নিয়ে গঠন করবেন তাতে তাদের কোনো আপত্তি থাকবে না। তিনি সার্চ কমিটির উদ্যোগকেও ইতিবাচক হিসেবে উল্লেখ করেছেন।
প্রসঙ্গত, সার্চ কমিটি ঘোষণার পর প্রধান বিরোধী পক্ষ যে প্রতিক্রিয়া ও শঙ্কা ব্যক্ত করেছিল তাতে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছিল। তাদের ভাষ্যমতে, এই সার্চ কমিটি দিয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন কোনোভাবেই সম্ভব নয়। কেননা, নিজেরাই দলীয় ব্যক্তি। গেল শুক্রবার বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সার্চ কমিটির সদস্যদের দলীয় পরিচয় প্রকাশ করেন। তবে বিএনপি এই সার্চ কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করেনি।
অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ অন্যান্য মন্ত্রীরা দাবি করে আসছেন, সার্চ কমিটি নিরপেক্ষ হয়েছে। ফলে নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ হবে বলে তারা আশা প্রকাশ করে আসছেন।
এছাড়া আগামী নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে সোমবার গণভবনে অনুষ্ঠিত দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ তারা গণতন্ত্র, জনগণের ক্ষমতায়ন এবং তাদের ভোটের অধিকারে বিশ্বাস করে। তাই জনগণের ভোটের অধিকার নিয়ে আর কেউ যেন ছিনিমিনি খেলতে না পারে সে জন্যও সকলকে সতর্ক করেন তিনি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 82 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ