সার্চ কমিটির সুপারিশ গোপন থাকার নিশ্চয়তা নেই

Print

নির্বাচন কমিশনে নিয়োগের জন্য সার্চ কমিটি রাষ্ট্রপতিকে যে সুপারিশ জমা দেবে তা গোপন নাও থাকতে পারে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘সার্চ কমিটি প্রকাশ না করলেও তাদের সুপারিশ করা নামগুলো ফাঁস হয়ে যেতে পারে। এই নাম মিডিয়ায় যাওয়ার কথা নয়, তবে গোপন থাকবে সে নিশ্চয়তাও দেয়া সম্ভব নয়।’
বৃহস্পতিবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সড়ক ভবনে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদেরকে এ কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

নির্বাচন কমিশনে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করতে সার্চ কমিটি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেয়া ৩১টি দলের কাছ থেকে পাঁচটি করে নাম চেয়েছিল। তবে এদের মধ্যে ২৬টি দল সার্চ কমিটিকে নাম জমা দিয়েছে। এসব নাম থেকে ২০টি বাছাই করে একটি সংক্ষিপ্ত তালিকাও করেছে সার্চ কমিটি। আর এই তালিকা নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে সুপ্রিমকোর্টের জাজেস লাউঞ্জে বৈঠকে বসে সার্চ কমিটি।
সার্চ কমিটিকে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির আগে রাষ্ট্রপতির কাছে ১০টি নাম জমা দিতে বলা হয়েছে। ২০১২ সালে নির্বাচন কমিশনে নিয়োগের আগে গঠন করা সার্চ কমিটিও এভাবেই নাম জমা দিয়েছিল। তবে তারা কাদের নাম সুপারিশ করেছেন, তা জানা যায়নি। তবে এবার সার্চ কমিটি যেন আগেই সুপারিশ করা নামগুলো প্রকাশ করে-সে বিষয়ে একটি দাবি উঠেছে।
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটি বিভিন্ন দলের কাছ থেকে যে নাম চেয়েছে সেটিও প্রকাশ করেনি কমিটি। যদিও গণমাধ্যমে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পক্ষ থেকে জমা দেয়া নামগুলো প্রকাশ হয়ে গেছে নানা সূত্র থেকে।
এসব নাম সঠিক কি না, সে বিষয়ে অবশ্য আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য দেয়া হয়নি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সার্চ কমিটিতে যারা তারা কোন দলের নয়। তারা বিভিন্ন দলের কাছে পাঁচ জনের নাম চেয়েছেন। আমরা আমাদের নাম দিয়েছি। সার্চ কমিটি কার নাম রাষ্ট্রপতির কাছে প্রস্তাব করবে সেটা মিডিয়ায় প্রকাশ করবেন কিনা সেটা বলার এখতিয়ার আওয়ামী লীগের নেই।’

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 97 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ