সিএনজি চালকের হাতে মিতুর ব্যবহৃত মোবাইলের সিম

Print

আলোচিত এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুর মোবাইল ফোনটি এখন ঢাকার একজন সিএনজি চালক ব্যবহার করছেন। ঢাকার মগবাজারের বাসিন্দা আব্দুল মান্নান চার/পাঁচ মাস আগে মালিবাগে একটি সিএনজি ফিলিং স্টেশনের সামনে একটি সিমকার্ড পান। সেটি তিনি কুড়িয়ে নিয়ে তার মোবাইল ফোন সেটে লাগিয়ে এখন ব্যবহার করছেন। এই আব্দুল মান্নান পেশায় একজন সিএনজি চালক। বাড়ি পটুয়াখালীর কুয়াকাটায়। মোবাইল ফোনের এই নম্বরটির মালিক চট্টগ্রামে হত্যার শিকার সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতু-তা তিনি জানেন না। গত শনিবার সন্ধ্যায় মিতুর ব্যবহৃত ওই নম্বরে ফোন করা হলে অপরপ্রান্ত থেকে নিজেকে আব্দুল মান্নান এই তথ্য জানান।
মিতুর বাবা পুলিশের সাবেক পরিদর্শক মোশারফ হোসেন এ ব্যাপারে বলেন, মেয়ের মোবাইল ফোনটি যে চালু রয়েছে, তা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে। মিতুর স্বামী সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। কিন্তু কেউই বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছেন না। তিনি আরও জানান, গত ১৮ অক্টোবর মিতুর মেয়ে তাবাসসুম তাসনিম টাপুরের জন্মদিন ছিল। ওই দিন আবেগ প্রবণ হয়ে নিজের মোবাইল ফোন থেকে মিতুর ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে তা খোলা পেয়েছিলেন তিনি। তখন ওই নম্বরটি ব্যবহারকারীর সঙ্গে তার কথাও হয়েছিল। ওই ব্যক্তি জানান যে তিনি সিএনজি চালক।

হাতিরঝিল থেকে সিমটি কুড়িয়ে পেয়েছিলেন। এরপর আরও তিন-চার দিন কথা হয় ওই ফোন নম্বরে। পরে ওই নম্বর ব্যবহারকারী একেক সময় একেক পরিচয় এবং সিমটি পাওয়ার স্থান সম্পর্কেও একেক জায়গার কথা বলতে থাকেন। মাঝে মাঝে ফোনটি বন্ধও পাওয়া যায়। গত ৫ জুন ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে চট্টগ্রামের জিইসি মোড় এলাকায় দুর্বৃত্তদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 241 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ