সুগন্ধা নদী থেকে ৫ দিন পর নিখোঁজ ৩জনের মরদেহ উদ্ধার

Print

ঝালকাঠির সুগন্ধায় নদীতে স্টিমারের সাথে ট্রলার নৌকা ডুবির ৫ দিন পর সুগন্ধা নদী থেকে নিখোঁজ ৩জনের মরদেহ উদ্ধার

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি:: ঝালকাঠিতে স্টিমার এমভি মধুমতির ধাক্কায় সুগন্ধায় নদীতে ট্রলার ডুবির ৫দিন পর সুগন্ধা নদী থেকে নিখোঁজ তিন যাত্রীর ভাষমান লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে নদীতে লাশ ভেসে উঠলে পুলিশ ও ফায়ারসার্ভিসের ডুবরী দল কে খবর দেয়ার পর নদী থেকে লাশগুলো উদ্ধার করেছে।
পুলিশ জানায়, সকাল ৭টার দিকে প্রথমে ঝালকাঠি শহরের কলেজ খেয়াঘাট সংলগ্ন দুর্ঘটনাকবলিত স্থানের সুগন্ধা নদীতে ভেসে ওঠে রাজ্জাক মল্লিক রাজা ও আলম জমাদ্দারের লাশ। পরে সকাল ৮টার দিকে জেলার রাজাপুর উপজেলার মানকী গ্রামের বিশখালি নদী থেকে উদ্ধার হয় তসলিম হাওলাদারের ভাসমান লাশ। গত শুক্রবার সকালে দুর্ঘটনার পর থেখে এরা তিনজনই নিখোঁজ ছিলেন। এদিকে নদীতে লাশ ভেসে ওঠার খবর পেয়ে তাদের স্বজন ও এলাকার শত শত মানুষ নদী পাড়ে ভিড় করতে থাকে। এসময় নিহতের স্বজনরা আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে ওঠে।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সকালে ঘন কুয়াশার মধ্যে পোনাবালিয়া ইউনিয়নের রাজাপুর খেয়াঘাট থেকে ১১ জন যাত্রী নিয়ে পৌর খেয়াঘাটের উদ্দেশ্যে সুগন্ধা নদী পার হওয়ার পথে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী স্টিমার এমভি মধুমতির ধাক্কা দিলে তাৎক্ষনিক ট্রলারটি ডুবে যায়। পরে ট্রলার চালকসহ ৮জন প্রানে বেঁচে গেলেও তিন যাত্রী নিখোঁজ হয়। তবে প্রানে রক্ষা পাওয়া শিবু ঘোষ (৭০), আঃ কাদের ব্যাপারীর পুত্র হেলাল (২০), আঃ রাজ্জাকের পুত্র মোঃ মিরাজ (২৫) ও মৃতঃ মেনহাজ উদ্দিনের পুত্র জসিম আহম্মেদসহ ৪ যাত্রী আহত হয়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 116 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ