সুনামগঞ্জের ছাতক সিমেন্ট কারখানা দূর্নীতি-অপরাধের স্বর্গ রাজ্য

Print

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার ছাতক সিমেন্ট কারখানায় ব্যাপক দূর্নীতি আর অপরাধের স্বর্গ রাজ্ব্যে পরিনত হয়েছে। দেশের একমাত্র রাষ্ট্রায়ত্ত এ কারখানার অভ্যন্তরের কারখানার কর্মকর্তাদের যোগ সাজোসে ও একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে র্দীঘ দিন ধরেই চলছে অনিয়ম আর দূর্নীতি। ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করে ৯২লাখ টাকার সিমেন্ট তুলে নিয়ে গেছে ঐ জালিয়াতি চক্র। সম্প্রতি এই ঘটনা প্রকাশিত হলে জেলা জুড়েই আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে। এ গঠনা প্রকাশের পর কারখার ৪জন কর্মকর্তাকে শোকজ ও ছাতক সিমেন্ট কারখানার রোপওয়ের বিভাগীয় প্রধান মাহবুব এলাকে প্রধান করে ৪সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিসিআইসি। অভিযোগে যানাযায়,জেলার ছাতক উপজেলায় ছাতক সিমেন্ট কারখানা থেকে ভুয়া কাগজপত্রে ব্যাংকের ক্রেডিট ভাইচার জাল করে ছাতক সিমেন্ট কারখানার নতুন প্রজেক্টের ডিপিডি আব্দুর রহমান বাদশার মাধ্যমে ও কারখানার কয়েকজন হিসাব কর্মকতার যোগ সাজোসে ৯২লাখ টাকার ভয়াবহ জালিয়াতির কার্য সম্পন্ন হয়েছে। ছাতক সিমেন্ট কারখানা থেকে ভুয়া কাগজ পত্র দিয়ে কোটি টাকার সিমেন্ট তোলার পর কতৃপর্ক্ষের সাথে বিভিন্ন ব্যাংকের ১৭টি চেকের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করেছে সম্পা এন্টারপ্রাইজ ও হানিফ এন্টারপ্রাইজ। গত ১৩ডিসেম্বর ছাতক পূবালী ব্যাংকের দেয়া কারখানার মাসিক হিসাব বিবরনীতে এ জালিয়াতির ঘটনা প্রকাশিত হলে কারখানার হিসাব কর্মকর্তা রেজাউল করিম ব্যবস্থপানা পরিচালকের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এতে জাল ক্রেডিট ভাউচার দিয়ে কারখানার ৯২লাখ টাকার সিমেন্ট তোলা হয়েছে বলে উল্লেখ্য করা হয়। সম্পা ও হানিফ এন্টারপ্রাইজের নামে ভুয়া ৭টি ভাউচারে ৯২লাখ টাকা ছাতক পূবালী ব্যাংকে পেমেন্ট দেখানো হয়েছে তা ছিল জাল। পরে কারখানা ও ব্যাংকের হিসাবে গরমিলের জন্য ঘটনার ব্যাপারে অধিকতর তদন্তে তা ধরা পরে। আরো জানাযায়,রুপালী ব্যাংকের ঢাকার একটি শাখায় সম্পা ও হানিফ এন্টারপ্রাইজের দেওয়া ২কোটি টাকার ব্যাংক গ্যারান্টিও ভুয়া ও জালিয়াতির মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। সম্পা ও হানিফ এন্টারপ্রাইজ পরিচালক রুবেল মিয়া জানান,সিমেন্টের টাকা নিয়ে কারখানার সাথে কিছু জঠিলতা হয়েছিল তার সমাধান হয়েছে। ছাতক সিমেন্ট কারখানার সিবিএ সেক্রেটারি আব্দুল কুদ্দুছ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা চললে। প্রজেক্টের ডিপিডি আব্দুর রহমান বাদশা তার বিরোদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,এই ব্যাপারে আমার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। ছাতক সিমেন্ট কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নেপাল কৃষ্ণ হাওলাদার বলেন,সম্পা ও হানিফ এন্টারপ্রাইজের সমস্যার বিষয়টি সমাধান হয়েছে। এই বিষয়ে তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। এই গঠনায় কারখানার ৪জন কর্মকর্তাকে শোকজ করা হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 69 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ