সৈয়দপুরে এখন থেকে প্রতিদিন ২টি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ!

Print

জেলা প্রতিনিধি (নীলফামারী):
১৮ জানুয়ারি হতে (ঢাকা-সৈয়দপুর-ঢাকা)
প্রতিদিন ২টি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ। সৈয়দপুরে বিভিন্ন এয়ারলাইনসের টিকেট পাওয়া এখন যাত্রীদের কাছে সোনার হরিণের দেখা পাওয়ার অবস্থা হয়েছে। নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছানোর অন্যতম বাহন বিমানযাত্রা জনপ্রিয় হয়ে ওঠায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আভ্যন্তরীণ রুট সৈয়দপুর-ঢাকা আকাশপথে প্রতিদিনই যাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় সৈয়দপুর, রংপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁওসহ অন্যান্য এলাকার ট্রাভেল এজেন্সী যাত্রীদের টিকিটের চাহিদা সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে।
সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে বিভিন্ন সময়ে প্রতিদিন ৭টি ফ্লাইট নিয়মিত চলাচল করলেও যাত্রীদের চাপ সামলানো যাচ্ছে না। ফলে যাত্রীদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে এবার বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রিজেন্ট এয়ারওয়েজ ঢাকা-সৈয়দপুর-ঢাকা আকাশপথে ফ্লাইট চালু করতে যাচ্ছে। আগামী ১৮ জানুয়ারী থেকে প্রতিদিন দুইটি করে ফ্লাইট চলাচল করবে বলে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের সূত্রে জানা গেছে। ফ্লাইট পরিচালনাকারী ওই প্রতিষ্ঠানের ডেপুটি ডিরেক্টর (অপারেশন) এমএ মামদুদ খান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি চিঠি সৈয়দপুর বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয় সোমবার। ওই চিঠিতে ঢাকা-সৈয়দপুর-ঢাকা রুটে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ প্রতিদিন দুটি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবে বলে জানানো হয়। এজন্য যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক শাহীন আহমেদের সাথে গতকাল মঙ্গলবার মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন রিজেন্ট এয়ারওয়েজের চিঠি তার হাতে এখনো আসেনি।
তবে তিনি বলেন, চলতি মাসেই রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট চালু হবে সৈয়দপুরে। এজন্য বিমানের সিডিউল নির্ধারণসহ অন্যান্য প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে কাজ করে যাচ্ছেন। কবে নাগাদ রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট চলাচল শুরু হবে তা আমার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ করবেন। তবে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে যাত্রীচাপে বিমান ওঠানামায় ব্যস্ততা বাড়ায় রাত্রীকালীন উড্ডয়ন ও অবতরণ ব্যবস্থা সহজীকরণে পর্যাপ্ত লাইটিংসহ নাইট ল্যান্ডিং ব্যবস্থা চালু করার জন্য কাজ করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহজাহানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আগামী ১৮ জানুয়ারী থেকে সৈয়দপুরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট চলাল শুরু হবে।
উল্লেখ্য, সৈয়দপুরের ব্যস্ততম এ বিমানবন্দর থেকে প্রতিদিন ৭টি ফ্লাইট চলাচল করছে। এর মধ্যে সরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ বিমানের ১টি, নভোএয়ার ও ইউএস বাংলা এয়ারলাইনসের ৩টি করে ফ্লাইট রয়েছে। এসব ফ্লাইটের যাত্রীর টিকিটের চাহিদা এত বেশি যে জরুরী প্রয়োজনে হঠাৎ করে বিমান যাত্রার কোন সুযোগ বিমনের টিকেট পেতে হলে প্রায় ১০/১৫ দিন আগে বুকিং দিতে হয়। তারপরেও অনেক সময় মিলেনা বিমানের টিকেট। রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট চলাচল শুরু হলে চাপ কিছুটা কমবে বলে ধারণা অনেকের।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 109 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ