স্বাধীনতা দিবসের সাজ পোশাক

Print
স্বাধীনতা দিবসের সাজ পোশাক

স্বাধীনতা মানেই অন্যরকম অনুভূতি আর ভিন্নরকম আনন্দ। আমাদের আবেগ, ভালোবাসা, হাসি-কান্নার সবটুকু জুড়েই রয়েছে স্বাধীনতা। স্বাধীনতার গৌরব আমরা ধারণ করেছি আমাদের হৃদয়ে। সেই গৌরব, সেই ভালোবাসার কিছুটা যে আমাদের পোশাকেও তা প্রকাশ পায়। স্বাধীনতার দিনে আমাদের পোশাকেও উঠে আসুক প্রিয় পতাকার লাল-সবুজ! লাল আর সবুজ শুধু দুটি রং নয়, এর সাথে জড়িয়ে আছে আমাদের স্বাধীন দেশ, স্বাধীন জাতিসত্তার গৌরবমাখা ইতিহাস। তাই স্বাধীনতার দিনটিতে লাল-সবুজই হোক আপনার সাজ-পোশাকের সঙ্গী। লাল সবুজকে ঘিরেই প্রকাশ হোক আপনার সৌন্দর্য। আপনার পোশাকের সাথে সাজও যেনো মানানসই হয় সেদিকেও খেয়াল রাখা খুব জরুরী। তাই আসুন আজ জেনে নেই স্বাধীনতা দিবসের সাজ পোশাকের টুকিটাকি।

মেয়েদের সাজ : লাল-সবুজ শাড়ি পরতে পারেন লম্বা হাতের ব্লাউজের সঙ্গে। লাল-সবুজ শাড়ি পরতে না চাইলেও এক রঙা শাড়ির সঙ্গে লাল-সবুজের সংমিশ্রণে ব্লাউজ পরুন। এক্ষেত্রে সাদা, ঘিয়া কিংবা কালো শাড়ির সঙ্গে মানানসই লাল কিংবা সবুজ ব্লাউজের হাতায় লেস বসানো হলে দেখতে আরও সুন্দর লাগবে আপনার স্বাধীনতা দিবসের পোশাক। এছাড়া এক কালারের লাল শাড়ি এবং সবুজ ব্লাউজ পড়তে পারেন। আবার আপনি চাইলে এই রঙের ম্যাচ বদেও দিতে পারেন।

যারা শাড়িতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন না, তারা সালোয়ার-কামিজ অথবা লম্বা কুর্তা পরে নিন। এক্ষেত্রেও উঁচু গলা ও লম্বা হাতা মানানসই হবে। পোশাকে লাল-সবুজ রাখতে না চাইলে রাখুন ওড়না, স্কার্ফ ও গহনায় লাল সবুজ রাখতে পারেন। আর যদি আলাদাভাবে পোশাক কেনা না হয়ে থাকে, তাহলে একটি বড় পতাকা কিনে গায়ে জড়িয়ে নিতে পারেন।

কপালে লাল-সবুজ টিপ পরে দু হাত সাজিয়ে তুলুন লাল-সবুজ চুড়িতে, খোঁপায় পরতে পারেন লাল ফুল। কপালে লাল অথবা সবুজ টিপ। যেহেতু আপনি বাহিরেই দিনটি কাটাবেন, তাই খেয়াল রাখুন যেনো আপনার মেকআপ যেনো বিরক্তির কারণ হয়ে না দাঁড়ায়।

সেক্ষেত্রে একদমই হালকা মেকআপ করুন। শুধু চোখটাকে একটু বেশি প্রাধান্য দিন। মোটা করে কাজল পড়তে পারেন। অথবা চোখে দিতে পারেন স্মোকি লুক। ঠোঁটে অবশ্যই মানানসই হালকা লিপিস্টিক ব্যাবহার করুন।

গলায় পড়তে পারেন। পুঁথি, মাটি, কাঠ বা সুতার মালা। সাথে মিল রেখে কানের দুল, ও অন্যান্য গোহনা। তবে একই উপাদানের সেট হলে দেখতে বেশি ভালো লাগবে। সাথে আঙুলে পড়তে পারেন বড় মেটাল অথবা পাথরের আংটি।

শিশুদের সাজ : শিশুদের উপস্থিতিতেই প্রাণবন্ত হয় উৎসব-আয়োজন। স্বাধীনতা দিবসে তাই শিশুদের জন্য বিভিন্ন বর্ণিল পোশাক এনেছে ফ্যাশন হাউসগুলো। মেয়ে শিশুদের জন্য পাওয়া যাচ্ছে ফ্রক, সালোয়ার-কামিজ ও শাড়ি এবং ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবি-পায়জামা, ফতুয়া ও টি-শার্ট। রংয়ের ক্ষেত্রে পতাকার রং লাল-সবুজের পাশাপাশি বিভিন্ন উজ্জ্বল রংকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এছাড়া পোশাকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস।

পুরুষের সাজ : পুরুষরা স্বাধীনতা দিবসের ফ্যাশন হিসেবে বেছে নিতে পারেন পাঞ্জাবি বা টি-শার্ট। স্বাধীনতা দিবস সম্পর্কিত বিভিন্ন ডিজাইনের টি-শার্টগুলো। আবার লাল বা সবুজ একটি টি-শার্ট পরে সঙ্গে একটি পতাকা বেঁধে নিতে পারেন কপালে বা হাতে। লাল-সবুজ ব্রেসলেটও ব্যবহার করতে পারেন।  লাল-সবুজের সংমিশ্রণের পাঞ্জাবি কিনে নিতে পারবেন বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস থেকে। লাল-সবুজ সংগ্রহে না থাকলে শুধু লাল কিংবা শুধু সবুজও পরে নিতে পারেন। এছাড়াও স্বাধীনতা দিবসে জড়িয়ে নিতে পারেন লাল সবুজ রঙের ফতুয়া।

কিছু টিপস : যদি শাড়ি পড়েন তাহলে অবশ্যই আরামদায়ক জুতা বা স্যান্ডেল পরবেন। যদি হিলে অভ্যাস না থাকে তাহলে হিল জুতা না পড়াই ভালো। কারণ একদিন ফ্যাশন ঠিক রাখার জন্য আপনাকে অনেক দিন ভুগতে হতে পারে।

গহনা যেনো খুব ভারি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। তাহলে আরামের চাইতে অসুস্থি বেশি হতে পারে।

রোদে বের হলে সানগ্লাস, ছাতা, পানির বোতল সাথে রাখুন। আপনি যেখানেই যান, আপনার উৎসব আনন্দ যেনো অটুট থাকে সেই দিকে খেয়াল রাখুন।

তথ্য ও ছবি : ইন্টারনেট

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 317 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ