স্মৃতিশক্তি ধরে রাখতে মেনে চলুন ৩টি বিষয়

Print

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে স্মৃতি শক্তি বাড়ে না, কমে। একটি নির্দিষ্ট বয়সের পরই স্মৃতিশক্তি ক্রমশ দুর্বল হতে থাকে। অনেকের ক্ষেত্রে এ সমস্যা তীব্র হয়ে ওঠে যা নেতিবাচক প্রভাব ফেলে ব্যক্তির সামাজিক ও কর্মজীবনে। যা মনে রাখা ভীষণ জরুরি ছিল সেটা ভুলে যাওয়ার জন্য প্রায়শই লজ্জায় পড়তে হয়।
তবে জীবনাচরণে সামান্য কিছু পরিবর্তন আনলেও এ পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ সম্ভব। যার ফলে শুধু স্মৃতির পাতাগুলোই সতেজ থাককে তা নয়, শরীরও চাঙ্গা হয়ে উঠবে। কাজেও মনোনিবেশ করতে পারবেন। এ জন্য যা করবেন-

স্বাস্থ্যকর ঘুম
দিনে নয় রাতে ঘুমান। সাত থেকে আট ঘন্টা অবশ্যই ঘুমাতে হবে। রাত জেগে কাজ করবেন না। রাত জেগে কাজ করলে তার রেশ কাটিয়ে ওঠতে দু’তি দিন সময় লাগে। রাত জাগলে শরীর ক্লান্ত হয়ে পড়ে। এতে আরও পিছিয়ে পড়তে হবে। রাতে ঘুমানোর আগে হালকা ব্যায়াম করতে পারেন। ঘুমানোর আগে ইলেক্ট্রনিক পর্দা (মোবাইল, কম্পিউটার, টেলিভিশন, ইত্যাদি) থেকে দূরে থাকুন। ঠিক সময়ে ঘুম থেকে উঠার অভ্যেস করুন। সকালে কাজ নেই, তাই বলে ঘুম ভেঙে গেলেও শুয়ে থাকবেন না। হাঁটাহাঁটি করুন। হালকা নাস্তা সেরে বেরিয়ে পড়ুন। সারা দিনটাই ভালো যাবে।
মস্তিস্ককে ব্যস্ত রাখুন
দুশ্চিন্তা, হতাশাকে ‘না’ বলুন। কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকুন, ব্যস্ত রাখুন মস্তিষ্ককে। দুঃশ্চিন্তা করতে গিয়ে মস্তিস্ক ক্লান্ত হয়ে পড়লে সেটা আর ভালো/ইতিবাচক চিন্তা করার আগ্রহ হারাবে। তাই সৃজনশীল কাজে ব্যস্ত রাখুন নিজেকে। রোজ নতুন করে কিছু শিখুন, বেশি মানুষের সঙ্গে মেশার অভ্যেস করুন। অনেক শিখতে পারবেন, জানতে পারবেন এবং হতাশা থেকে দূরে থাকতে পারবেন।
খাবার গ্রহণে সচেতন হোন
বাইরের খাবার এড়িয়ে চলুন। সিদ্ধ খাবার খান। প্রচুর পানি, শাকসবজি, ফলমূল গ্রহণ করুন। খাবার বেশি সিদ্ধ করবেন না। খাবারে যেন সব ভিটামিন থাকে সেটা নিশ্চিত করুন। চিনি, চর্বিসমৃদ্ধ খাবার পরিহার করুন।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 127 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ