স্মৃতি ঠিক রাখতে হলে যা খাবেন না

Print

কিছু খাবার আছে যা খেলে স্মৃতিশক্তি প্রখর হয়, আবার কিছু খাবার স্মৃতিশক্তি কমিয়ে দেয়। গবেষকেরা বলেন, মানসিক ও শারীরিক দুভাবেই সুস্থ থাকা জরুরি। মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখার বিষয়টি অনেকে এড়িয়ে যান। মস্তিষ্কে যদি ক্ষুরধার স্মৃতিশক্তি চান, তবে খাদ্য তালিকা থেকে কিছু খাবার ছেঁটে ফেলতে হবে। স্মৃতিশক্তি ধরে রাখতে যেসব খাবার এড়িয়ে যাবেন তার তালিকা দেখে নিন:
অতিরিক্ত টুনা মাছ খাওয়া ঠিক নয়।সামুদ্রিক খাবার: সামুদ্রিক অনেক খাবারে অতিমাত্রায় পারদ থাকে, যা মস্তিষ্কের জ্ঞান আহরণ বিষয়টিকে বাধাগ্রস্ত করে। প্রতি সপ্তাহে যদি তিনটির বেশি টুনা বা অন্য সামুদ্রিক মাছ খাওয়া হয়, তবে স্মৃতিশক্তিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

প্যাকেটজাত নাশতা স্মৃতি দুর্বল করে।প্যাকেটজাত খাবার: কোনো কিছু মনে রাখতে পারছেন না? বেশি বেশি ট্রান্স ফ্যাট এর জন্য দায়ী। কোনো শব্দ বা বিষয় ভুলে যাওয়ার সমস্যা তৈরি করে এ ধরনের ক্ষতিকর চর্বি। সাধারণত কারখানায় উদ্ভিদের তেল থেকে তৈরি এই চর্বি স্ন্যাক খাবার ও প্যাকেটজাত ভাজা খাবারে ব্যবহার করা হয়।
অতিরিক্ত চিনি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।চিনিযুক্ত খাবার: যেসব খাবারে বেশি বেশি চিনি বা ফ্রুকটোজ থাকে এবং চিনি দিয়ে ভাজা তা এড়িয়ে যাবেন। এটি মনোযোগ ও শেখার ক্ষেত্রে ব্যাঘাত ঘটায়।
লবণাক্ত খাবার মস্তিষ্ক ভারসাম্যহীন করে।লবণাক্ত খাবার: বেশি লবণ খাওয়া শরীরের জন্য ভালো নয়। যেসব খাবারে বেশি সোডিয়াম থাকে, তা খেলে চিন্তাকে ভারসাম্যহীন করে তোলে।
অতিরিক্ত পিৎজা খাওয়াও ঠিক নয়।স্যাচুরেটেড ফ্যাট বা সম্পৃক্ত চর্বি: যাঁরা অতিরিক্ত পিৎজা বা পাস্তা খান, তাঁরা স্মৃতিশক্তি বাড়াতে এই খাবার ছেড়ে দিতে পারেন। অতিরিক্ত সম্পৃক্ত চর্বিযুক্ত খাবার খেলে স্মৃতিশক্তি দুর্বল হয়ে যায়। তথ্যসূত্র: আইএএনএস।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 208 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ