হজে লিজের উড়োজাহাজই বিমানের ভরসা

Print

চলতি বছর ৬৩ হাজার হজযাত্রী পরিবহন করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। গত দুই বছর হজযাত্রী পরিবহনে লিজে উড়োজাহাজ সংগ্রহ করেনি বিমান। কিন্তু এবার যাত্রী বৃদ্ধি ও একটি উড়োজাহাজ বিকল থাকায় চলতি বছর হজে তিন মাসের জন্য দু’টি উড়োজাহাজ ভাড়া করছে বিমান। এছাড়া বহরের যুক্ত বিভিন্ন মেয়াদে লিজে আনা সাতটির মধ্যে একাধিক উড়োজাহাজ হজফ্লাইট হিসেবে ব্যবহার হবে।
বিমান সূত্র জানায়, জাতীয় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স হজযাত্রী পরিবহনের জন্য দু’টি উড়োজাহাজ তিন মাসের ওয়েট লিজে আনছে। এজন্য গত ৫ এপ্রিল দরপত্র আহ্বান করে বিমান। এতে সাতটি প্রতিষ্ঠান দরপত্র জমা দেয়। এসব প্রতিষ্ঠানের দেওয়া দর বিবেচনা করে বিমানের কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি মালোশিয়ান প্রতিষ্ঠান ‘ফ্লাই গ্লোবাল’কে সুপারিশ করে। প্রতিষ্ঠানটি সরবরাহ করা উড়োজাহাজ দু’টি বিমান ও সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটির পর্যবেক্ষণ শেষে জুলাই মাসে যুক্ত হবে বিমান বহরে।

বর্তমানে বিমান বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা ১৩টি। এরমধ্যে ছয়টি উড়োজাহাজ বিমানের নিজস্ব ও বাকি সাতটি উড়োজাহাজ বিভিন্ন মেয়াদে লিজে নেওয়া হয়েছে। নিজস্ব কেনা নতুন চারটি সুপরিসর বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর এবং দু’টি নতুন ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ রয়েছে বিমান বহরে। এছাড়া দীর্ঘমেয়াদি লিজে দু’টি বোয়িং ৭৭৭-২০০ ইআর, দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০, দু’টি ড্যাশ-৮ কিউ৪০০ উড়োজাহাজ রয়েছে। সর্বশেষ আট মাসের জন্য বিমান বহরে যুক্ত হয়েছে একটি এয়ারবাস এ-৩৩০ উড়োজাহাজ।
স্পেনের ওয়ামোস এয়ার থেকে আট মাসের জন্য ওয়েট লিজে এই উড়োজাহাজটি আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) থেকে উড়োজাহজটির মাধ্যমে ঢাকা-দোহা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছে বিমান। ওয়েট লিজের শর্ত মোতাবেক এয়ারক্র্যাফট দু’টির ককপিট ও কেবিন ক্রুসহ সব মেনটেইনেন্স সাপোর্ট দেবে লিজদাতা প্রতিষ্ঠান।
চলতি বছরে হজ ফ্লাইট শুরু হবে ২৪ জুলাই। হজযাত্রীদের নিয়ে বিমানের সর্বশেষ হজফ্লাইট ২৬ আগস্ট ঢাকা ছাড়বে। এছাড়া হাজিদের দেশে ফেরাতে ৫ সেপ্টেম্বর বিমানের ফিরতি ফ্লাইট শুরু করবে, চলবে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত। বিমান বর্তমানে ১৫টি আন্তর্জাতিক ও সাতটি অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। গত ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে বিমান ২৩ লাখ ১৮ হাজার যাত্রী পরিবহন করেছে।
এ প্রসঙ্গে বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ বলেন, ‘হজযাত্রী পরিবহনের জন্য বিমানের নিজস্ব উড়োজাহাজের সঙ্গে ওয়েট লিজে আনা দু’টি উড়োজাহাজ বহরে যোগ হবে। হজফ্লাইট পরিচালনার সময় অন্য ফ্লাইটে যেন প্রভাব না পড়ে, সেই লক্ষ্যে বহরে উড়োজাহাজ সংযোজন করা হচ্ছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স হজযাত্রীদের সর্বোচ্চ সেবা দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’
আগামী বছরের শুরুতে বিমান বহরে দীর্ঘমেয়াদের লিজে দু’টি উড়োজাহাজ যুক্ত করা হবে বলেও জানান শাকিল মেরাজ।
উল্লেখ্য, এ বছর মোট এক লাখ ২৭ হাজার হজযাত্রী পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশে সৌদি আরব যাবেন। এরমধ্যে বিমান পরিবহন করবে ৬৩ হাজার ৫০০ হজযাত্রী। গত বছর এক লাখ এক হাজার ৮২৭ হজযাত্রীর মধ্যে ৪৯ হাজার ৫৪৫ হজযাত্রী পরিবহন করে বাংলাদেশ বিমান।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 138 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ