হাতের কাছে প্রাকৃতিক পেইনকিলার

Print

পেইনকিলার পিলের ওপর নির্ভরশীলতা আমাদের দীর্ঘমেয়াদী ক্ষতির কারণ হতে পারে। আমরা অনেকসময় না ভেবেই নিয়ে ফেলি কোন পেইনকিলার। এটা যে শরীরের জন্য কত ক্ষতিকর হতে পারে তা শুধু স্বাস্থ্যবিশারদরাই জানেন। এর চেয়ে প্রাকৃতিক পেইনকিলারের উপর নির্ভর করলে অনেক উপকার পাওয়া যাবে। আপনার কিচেনেই হয়তো রয়েছে সেসব প্রাকৃতিক পেইনকিলার। যেগুলোর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। জেনে নিন আপনার হাতের কাছের এমন প্রাকৃতিক পেইনকিলারগুলোর কথা:
১. রসুন

রসুনের বহুবিধ উপকারিতা। প্রতিদিন কয়েকটি কোয়া রসুন হার্ট সহ বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় মহৌষধের মত কাজ করতে পারে। চিকিৎসাশাস্ত্রের জনক হিসেবে পরিচিত হিপোক্রিটাস বলেছিলেন ‘আপনার খাবার হউক আপনার ঔষধ, আপনার ঔষধ হউক আপনার খাবার।’ রসুন এমন একটি খাবার, এমন একটি ঔষধ।

২. টার্ট চেরি
আমরা হয়তো জানিনা এই চেরি পেইনকিলার হিসেবে অসাধারণ! এর মধ্যে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান ‘অ্যান্থোসায়ানিনস’ এর উপস্থিতি শরীরে ব্যাথা রোধে কার্যকরী। অল্প কয়েকটা চেরি দিতে পারে অনেক আরাম।

৩. হলুদ
যে উপাদানের কারণে হলুদ তার রং ধারণ করে সেটা হলো স্পাইস কারকামিন। এর মধ্যে বেদনানাশক উপাদান আছে যা অ্যান্টিবায়োটিকের বিকল্প হিসেবে কাজ করতে পারে। বিশেষ করে পেশী ও জয়েন্টে ব্যথার ক্ষেত্রে এটা ফলপ্রসূ। দুধের সাথে বা চায়ের সাথে মিশিয়ে সেবন করতে হবে।

৪. আদা
আদার উপকারিতা বহুবিধ! আর্থ্রাইটিস, পেটে ব্যাথা, বুকে ব্যথা ও মাসিক ঋতুস্রাব পরবর্তী ব্যথারোধে আদা খুবই উপকারী। যে জায়গাতে ব্যথা হয় সেখানে লাগালে অনেক উপকার পাওয়া যাবে।

৫. লাল আঙ্গুর
পেইনকিলার হিসেবে লাল আঙ্গুর জনপ্রিয় নয়। লাল আঙ্গুরে ‘রেসভেরাট্রল’ নামে একটি লাল রংয়ের এন্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে। বিভিন্ন জয়েন্টে ব্যথা ও পিঠে ব্যথার উপশপে অসাধারণ এই লাল আঙ্গুর।

৬. পুদিনা পাতা
পুদিনা পাতার ঔষধি গুণ বেশ! এটা মাংসপেশীর ব্যথা, দাঁতে ব্যথাসহ স্নায়ুতে ব্যথা ঠেকায়। হজমে সমস্যা দূর করে এবং পেটে সমস্যা ঠেকায়। এছাড়া মন ও স্মরণক্ষমতার উপর ভালো প্রভাব ফেলে। কিছু পুদিনা পাতা চিবিয়ে খান তাহলে পেইনকিলারের কাজ হয়ে যাবে।

৭. লবণ
দশ থেকে পনের চা-চামচ লবণ বা এক কাপ লবণ আপনার গোসলের পানির সাথে মেশান। পনের মিনিট নিজেকে ভিজিয়ে রাখুন সে পানিতে। সেই সেলাই সলূশনটি শরীরের কোষগুলোকে ডিহাইড্রেট করতে সাহায্য করবে এবং এর ফলে ব্যথা দূর হবে। অবশ্য শরীরে সদ্য কাঁটাছেড়া থাকলে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিতে হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 151 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ