‘অবৈধ মেলামেশায় রাজি না হওয়ায় তরুনীকে খুন’

Print

lakshmipur newsলক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের চর মনসা গ্রাম থেকে ২৩ বছরের বয়সী এক তরুনী লাশ উদ্ধারের ১২ দিন পর এ ঘটনার সাথে জড়িত মূল হোতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে সদর উপজেলার ভবাণীগঞ্জ ইউনিয়নের মো: সিরাজ আনসারের পুত্র মো: সোহেল (৩২) ও  লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর গ্রামের আবুল কাসেমের পুত্র মো: সোহেল (২৩) আটক করে। তবে ঘটনার ১২ দিন পার হলেও তরুনী পরিচয় মেলেনি।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার এস আই মো: জাহাঙ্গীর আলম জানান, সদর উপজেলার চর মনসা গ্রাম থেকে গত ৯/১০/১৬  রোজ বুধবার দুপুরে ২৩ বছর বয়সী এক তরুনী লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে এ ঘটনায় ওই রাতেই সদর থানায় পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করে।

দীর্ঘ দিন পর্যন্ত পুলিশ এ তরুণী হত্যার ঘটনায় জড়িত ধরতে পুলিশ অভিযান চালায়। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে পুলিশ ২ জনকে আটক করে।

আটকের এক পর্যায়ে আটককৃতরা জানান, ঘটনার দিন গত ৬/১০/১৬ মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ২ টার দিকে ভবাণীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সামনে রামগতি- লক্ষ্মীপুর সড়কের উপর ওই তরুনী দাঁড়ানো অবস্থায় দেখতে পেয়ে তাকে মটরসাইকেলে তুলে নেয় ২ বন্ধু পরে।

ওই মেয়েটি চরমনসা গ্রামে নিয়ে অবৈধ মেলামেশা করার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকে আটককৃত ২ জন। কিন্তু রাজি না হওয়ার সারা রাত চেষ্টা করতে থাকে ২ বন্ধু। পরে এক পর্যায়ে ভোর হওয়ার আগেই তরুণী ওড়না দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে ড্রেনে লাশ ফেলে রেখে চলে যায়।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মো: আবদুল্লাহ আল মামুন ভৃঁইয়া বলেন, তরুনীকে হত্যার ঘটনার সাথে জড়িত ২ আসামী বিজ্ঞ আদালতে স্বেচ্চায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে আদালতের নির্দেশে আসামীদের সোমবার বিকেলে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার সময় ব্যবহৃত মটরাসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 52 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ