একটি সবজিতে দ্রুত প্রতিরোধ হবে ক্যান্সার!

Print

%e0%a6%8f%e0%a6%95%e0%a6%9f%e0%a6%bf-%e0%a6%b8%e0%a6%ac%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a7%81%e0%a6%a4-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a6%bf%e0%a6%b0শীতকালীন সবজি ফুলকপি কম-বেশী সবাই পছন্দ করে। কাঁচা, সিদ্ধ ও ভাজা অথবা পাকোড়া তৈরি করেও খাওয়া যায় এ সবজি।
আগে এ কপির পাতা ও ডাঁটা ফেলে দেয়া হতো। বর্তমানে তা দিয়ে স্যুপ রান্না করে খাওয়া হয়। ফুলকপির পাতা ও ডাঁটায় ও প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন রয়েছে। ফুলকপি দিয়ে এখন আচারও তৈরি করা হচ্ছে।
গবেষকদের মতে, ফুলকপিতে প্রচুর ভিটামিন এ থাকে, যা শিশুর দৃষ্টিশক্তি রক্ষায় সাহায্য করে। ফুলকপির ফুল, পাতা ও ডাঁটায় প্রচুর খনিজ পদার্থ, খাদ্যশক্তি, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, আয়রন ইত্যাদি রয়েছে। জলীয় অংশও আছে। মজার বিষয় হল, ফুলকপিতে গরুর দুধের চেয়ে ক্যালসিয়াম ও আয়রনের পরিমাণ যথাক্রমে ৫ এবং ২০০ গুণ বেশি।
চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা মনে করেন, এতে রয়েছে প্রচুর আঁশ, যা পরিপাকতন্ত্রকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। আরও আছে অ্যান্টি-ক্যান্সার বা ক্যান্সার নিরোধক উপাদান। কোলন, রেকটাম ও পাকস্থলীর ক্যান্সার প্রতিরোধ করে এবং মলাশয় ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় ফুলকপি।
এছাড়া ফুলকপির জাদুতে আর কী কী রোগ সেরে যায় তা নিম্নে আলোচনা করা হল :
* ফুলকপি কোলন, রেকটাম ও পাকস্থলীর ক্যান্সার প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখে।
* ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি কলেস্টরল কমাতেও ফুলকপির ভূমিকা আছে।
* ক্যান্সার নিরোধক উপাদান বেশি থাকে ফুলকপির পাতার উপরিভাগে।
* সপ্তাহে দুই পাউন্ড এ জাতীয় শাকসবজি খেলে মলাশয় ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অর্ধেক কমতে পারে।
* ডায়াবেটিসের কারণে রক্তনালির ক্ষতি হয়। ফুলকপি তা পূরণ করে।
* ফুলকপির মতো সবজি হার্টঅ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকিও হ্রাস করে।
* এ সবজি কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে।
* ফুলকপিতে বিদ্যমান ফলেট গর্ভবতী মায়ের জন্য উপকারী। রক্তের শ্বেতকণিকা তৈরিতে সাহায্য করে ফলেট।
সাবধানতা : যারা কিডনির সমস্যায় ভুগছেন তাদের ফুলকপি বেশি না খাওয়াই ভালো । আবার যাদের অ্যাসিডিটির সমস্যা আছে, তাদেরও ফুলকপি খেতে একটু সাবধান হতে হবে। কারণ ফুলকপি খেলে অনেকের গ্যাসের সমস্যা হয়। এ ছাড়া থাইরয়েড গ্ল্যান্ডসংক্রান্ত জটিলতায় আক্রান্তদের ফুলকপি এড়িয়ে চলাই ভালো।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 66 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ