এফ-১৬ যুদ্ধবিমান দিয়েই পরমাণু যুদ্ধ করবে পাকিস্তান!

Print

%e0%a6%8f%e0%a6%ab-%e0%a7%a7%e0%a7%ac-%e0%a6%af%e0%a7%81%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a8-%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a7%9f%e0%a7%87%e0%a6%87-%e0%a6%aa%e0%a6%b0সম্প্রতি মার্কিন পরমাণু বিজ্ঞানী হ্যানস ক্রিসটেনসেন এবং রবার্ট নরিস পাকিস্তানকে বিক্রি করা মার্কিন এফ-১৬ যুদ্ববিমান সম্পর্কে বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ করেছে তাদের বইয়ে। গুগুলের উপগ্রহ চিত্রে ধরা ছবি ও বিভিন্ন গুপ্তচর সংস্থার থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, পাকিস্তানকে বিক্রি করা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এফ-১৬ যুদ্ধবিমান, মার্কিন জেট এবং পাকিস্তান বিমানবাহিনীর ফ্রেঞ্চ মাইরেজ এখন পরমাণু অস্ত্রবহনে সক্ষম।
মার্কিন বিজ্ঞানী হ্যানস ক্রিসটেনসেন যিনি ‘নিউক্লিয়ার নোটবুক অন পাকিস্তান নিউক্লিয়ার ফোর্সেস’-এর সহ লেখক, জানিয়েছেন, এই তথ্য জানার পরও কৌশলগত কারণেই পাকিস্তানকে অস্ত্র বিক্রি করবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। নিউক্লিয়ার ইনফরমেশন প্রজেক্টের ডিরেক্টর জানিয়েছেন, মার্কিন প্রশাসন চাইলে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এর জন্যে জরুরি পদক্ষেপ নিতে পারে, কিন্তু এখন এরকম কোনো পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাবছে না সেখানকার প্রশাসন।
বিজ্ঞানীদের দাবি, মনে করা হচ্ছে এফ-১৬ হলো পাকিস্তানের অস্ত্রভাণ্ডারে প্রথম যুদ্ধবিমান যেটা পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম হয়েছে।
তাহলে কী বলা যেতে পারে পাকিস্তানের ওপর এখন কোনো দেশ যদি পারমাণবিক হামলা চালায়, তাহলে কী পাকিস্তান সেনাবাহিনী প্রত্যাঘাত করতে প্রস্তুত? এর উত্তরে বিজ্ঞানী ক্রিসটেনসেন জানিয়েছেন, এখনো পাকিস্তান সম্পূর্ণভাবে পরমাণু অস্ত্রে সজ্জিত না হলেও, অল্প কিছুদিনের মধ্যেই পরিস্থিতির পরিবর্তন হবে। পাকিস্তান শুধু প্রত্যাঘাত আনতেই সক্ষম হবে না, চাইলে ছোট পরিসরের মিসাইল হানা চালাতেও সক্ষম হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 77 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ