কালকিনিতে চাল পড়া খাইয়ে চোর সাব্যস্ত!

Print

%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%9a%e0%a6%be%e0%a6%b2-%e0%a6%aa%e0%a7%9c%e0%a6%be-%e0%a6%96%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a7%9f%e0%a7%87-%e0%a6%9aমাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার দুর্গম এলাকা বাঁশগাড়ির কাচিকাটা গ্রামে চাল ও চুন পড়া খাইয়ে তিন কৃষককে চোর উপাধি দেয়া হয়েছে। শুক্রবার সকালে তার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে গ্রামবাসী। বিক্ষোভ মিছিলে পাঁচ শতাধিক গ্রামবাসী অংশ নেন। তারা আইনি প্রক্রিয়ায় প্রকৃত চোর ধরে বিচারের দাবি জানিয়েছেন।
গ্রামবাসী জানায়, সম্প্রতি গ্রামের সাইদুল হক পল্টু মুন্সির ঘর থেকে নগদ ৩৫ হাজার টাকা, দুই ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও একটি মোবাইল সেট চুরি হয়। আর চোর ধরতে ঘরের মালিক আইনি প্রক্রিয়ায় না গিয়ে প্রথমে গ্রামবাসীদের প্রাচীন পন্থায় চুন পড়া খাওয়ায়। আর এতে কেউ ধরা না পরায় তিনি একইভাবে চাল পড়া খাওয়ান। এসময় থানা পুলিশ থাক দূরের কথা এমনকি গ্রামের ইউপি সদস্যকে পর্যন্ত রাখা হয়নি। আর সেই কুসংস্কারের পন্থায় চাল পড়া খাইয়ে গ্রামের তিন কৃষক জাফর খান, শাহীন মোল্লা ও শহিদুল মোল্লাকে চোর উপাধি দেয়া হয়।

এতে গ্রামবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তারা চোর ধরতে প্রাচীন ফকিরি পন্থা বাদ দিয়ে আইনি প্রক্রিয়ায় চোর ধরার দাবি জানিয়েছেন। সাইদুল হক পল্টু মুন্সির স্ত্রী রেখা বেগম বলেন, আমাদের ঘরে চুরি হয়েছে। তাই চোর ধরতে চাল ও চুন পড়া খাইয়েছি। এতে যারা চোর সাব্যস্ত হয়েছে আমরা তাদের বিচার চাই।
ভুক্তভোগী কৃষক জাফর খান, শাহীন মোল্লা ও শহিদুল মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, প্রকৃত চোর ধরা পড়ুক তা আমরাও চাই। তবে সেটি হতে হবে আইনি প্রক্রিয়ায়। এখানে চাল ও চুন পড়া খাওয়ানোর নামে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে আমাদের চোর উপাধি দেয়া হচ্ছে। এতে আমাদের সম্মানহানি হয়েছে। আমাদের সম্মানহানি যারা করেছে আমরা তাদেরও বিচার চাই।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 104 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ