জুতা সেলাই করতে মুচির দোকানে মন্ত্রী

Print

%e0%a6%9c%e0%a7%81%e0%a6%a4%e0%a6%be-%e0%a6%b8%e0%a7%87%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%87-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%ae%e0%a7%81%e0%a6%9a%e0%a6%bf%e0%a6%b0-%e0%a6%a6%e0%a7%8b%e0%a6%95মন্ত্রী মানেই কোটি টাকা দামের গাড়িতে চলাচল, সামনে পেছনে পুলিশের প্রহরা, পরনে দামি দামি পোশাক—এটাই আমাদের ধারণা। কিন্তু প্রচলিত ধারণার উল্টো চিত্র দেখা গেল ভারতের কেন্দ্রী বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানির বেলায়। শনিবার কোয়েম্বাত্তুরে একটি সরকারি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন তিনি। অনুষ্ঠান শেষে স্থানীয় বিমানবন্দরে ঢোকার সময় পায়ের জুতা ছিড়ে যায় তার। এয়ারপোর্ট থেকে বেরিয়ে হাটতে হাটতে একটি মুচির দোকানে যান জুতাটি সেলাই করাতে। ওই দোকানের ভেতর মুচির এগিয়ে দেওয়া নোংরা টুলের ওপর বসে সেলাই করা দেখতে থাকেন ইরানি।
কিন্তু সেলাই শেষ করার পর বাধে বিপত্তি। মুচি জানালেন তার মজুরি হয়েছে ১০ রুপি। ইরানি ১০০ রুপির নোট দিলে মুচি বলেন, তার কাছে ভাংতি হবে না। আশপাশ থেকেও ভাংতি করতে পারলেন না তিনি। উপায় না দেখে মন্ত্রী তাকে ১০০ রুপিই রেখে দিতে বলেন। কিন্তু ১০ রুপির কাজ করে দশ গুণ বেশি মজুরি রাখতে মুচির মন সায় দিচ্ছিল না। ফলে তিনি মন্ত্রীর উভয় জুতায় টপাটপ আরো কয়েকটা সেলাই করে দেন এই বাড়তি ৯০ রুপি ‘হালাল’ করার জন্য।
অনেকে এই ঘটনার ছবি ও ভিডিও তুলে ইন্টারনেটে শেয়ার করে দিয়েছেন। তারপরেই প্রশংসা বন্যায় ভাসছেন মন্ত্রী। অন্য রাজনীতিকদের মতো বিলাসিতায় গা না ভাসানোর কারণে গণমানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন তিনি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 327 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ