জেনে নিন কসমেটিক্সের রাসায়নিক উপাদান আমাদের কী কী ক্ষতি করে

Print

* পুরুষ কিংবা নারী, আমরা সকলেই প্রতিদিন বিভিন্ন ধরণের কসমেটিক্স ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা কোন কসমেটিক্স কী রাসায়নিক উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয় এবং এগুলো আমাদের শরীরে কোন ক্ষতির কারণ হবে কিনা। আমরা না জেনে না বুঝে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন রকমের কসমেটিক্স কিনে থাকি। কিন্তু কোনটা কীভাবে কী উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয়েছে তা আমরা খেয়াল খুব কমই করে থাকি। তাই যে কোন কসমেটিক্স কেনার আগে আপনাদের অবশ্যই জানা উচিত কোন কসমেটিক্সে কী আছে এবং কোনটা ব্যবহারের ফলে আমাদের দেহে ক্ষতি হতে পারে।

১। চুল স্ট্রেট রাখা ও সহজে ম্যানেজ করার জন্য ফরমালডিহাইড সাহায্য করে। কিন্তু অতিরিক্ত পরিমানে ফরমালডিহাইড থাকলে এর টক্সিক কেমিক্যাল থাকে চোখ, নাক ও গলায় ইরিটেশন হতে পারে। হেয়ার স্ট্রেটিং প্রডাক্টে যদি ফরমালডিহাইড ১২ শতাংশ থাকলে তা চিন্তার কারণ। দীর্ঘ দিন ধরে এই ধরণের টক্সিক কেমিক্যাল ব্যবহার করলে ক্যানসার হওয়ার সম্ভবনা থাকে। এছাড়া অ্যাজমা, বার্থ ডিফেক্ট, অন্ধত্বর সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

২। হেয়ার স্ট্রেটনারের মত নেলপলিশেও ফরমালডিহাইড থাকে। এছাড়া টোলউইন এবং dibutyl phthalate উপকরণও থাকে। অতিরিক্ত ব্যবহারে অ্যাজমার সমস্যা হতে পারে। পলিশ রিমুভার ও আর্টিফিশিয়াল নেল প্রডাক্টেও এই ধরণের টক্সিক কেমিক্যাল থাকে।

৩। প্রায় ৬০ শতাংশ লিপস্টিকে লেড থাকে। সারাদিনে আমরা অনেক বার ঠোঁটে লিপস্টিক দিয়ে থাকি ঠিক ততবারই লেডের সংস্পর্শে আসে আমাদের ঠোঁট। কতটা “লেড এক্সপোজার” হলে তা ত্বকের জন্য নিরাপদ তা জানা মুশকিল। তবে লেড থেকে অ্যানিমিয়া, গ্রোথ রিটারডেশন, খিচুনির সমস্যা হতে পারে। প্রেগন্যান্ট মহিলা ও বাচ্চাদের জন্য “লেড এক্সপোজার” খুব ক্ষতিকর। কারণ এর থেকে বাচ্চাদের শারীরিক উন্নতির ক্ষতি হতে পারে। তাই লেড রয়েছে এইরকম লিপস্টিক ব্যবহার না করাই ভালো।

৪। শ্যাম্পুর মধ্যে অতিরিক্ত পরিমানে সোডিয়াম লরেথ সালফেট থাকলে তাও শরীরের জন্য ক্ষতি কারক। ব্রেস্ট ক্যানসার হওয়ার সম্ভবনা থাকে। অনেক সময় বেবি শ্যাম্পু গুলতেও এই ধরণের উপকরনগুলো থাকে। তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই তার পরিমাণ কম হয়। যেসব শ্যাম্পু বা কসমেটিক্স প্রডাক্টে 1,4-dioxane, এবং প্রেজারভেটিভ, quaternium-15, DMDM hydantoin, imidazolidinyl urea ও diazolidinyl urea রয়েছে সেগুলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

৫। মাসকারার মিথাইলপেরাবেন, অ্যালুমিনিয়াম পাউডার থেকে অ্যালার্জি হতে পারে।

৬। লিকুইড হ্যান্ডওয়াশ ও টুথপেস্টে ট্রাইক্লসান থাকতে পারে, যার থেকে অ্যালার্জি ও ক্যানসার হওয়ার সম্ভবনা থেকে যায়।

৭। ডে মশ্চারাইজারে রেটিনল পামিটেট, রেটিনল, ল্যানোলিন্টে থাকলে অ্যালার্জি, রেশ, হতে পারে। সানস্ক্রিনে অক্সিবেনজন, টাইটেনিয়াম অক্সাইড থাকলেও অ্যালার্জি হতে পারে।

No automatic alt text available.

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 93 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ