ঝিনাইদহে অর্ধশর্ত প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষার্থীরা ঝুঁকিপূণ ভবনে ক্লাস করছে

Print

ঝিনাইদহে অর্ধশর্ত প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষার্থীরা ঝুঁকিপূণ ভবনে ক্লাস করছে বৃষ্টি হলেই স্কুল ছুটি !

school-pic-jhenaidah
ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহ জেলায় প্রায় অর্ধশত প্রাইমারি স্কুলের ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। কোনো কোনো ঝুঁকিপূর্ণ স্কুলে পাঠদানও করা হচ্ছে। আবার কোনো কোনো স্কুলের ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ছেড়ে খোলা আকাশের নিচে পাঠদান চলছে।

জেলার শৈলকুপা উপজেলার বন্দেখালী প্রাইমারি স্কুলটি ১৯৯৩ সালে কমিউনিটি স্কুল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। স্কুলের পাকা ভবন নির্মাণ করা হয় উপজেলা পরিষদ থেকে। নির্মাণ কাজ এতো নিম্নমানের ছিল যে, কিছুদিন যেতে না যেতেই ভবনের বিভিন্ন স্থানে ফাটল ধরে। ছাদ থেকে কংক্রিটের চাংড়া ভেঙে পড়তে থাকে। এরপর প্রকৌশল বিভাগ থেকে স্কুল ভবন ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়।

প্রধান শিক্ষক মোঃ হাশেম আলি সাংবাদিককে বলেন, কয়েক বছর ধরে স্কুলটি চলছে পার্শ্ববর্তী লিচু বাগানে। শিক্ষার্থীরা চট বিছিয়ে বসে শিক্ষা নেয়। বৃষ্টি হলে স্কুল ছুটি হয়ে যায়। অভিভাবকরা শিক্ষার্থীদের অন্য স্কুলে নিয়ে যাচ্ছে। এ স্কুলের ছাত্র সংখ্যা কমে যাচ্ছে।

ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঝিনাইদহ জেলায় সরকারি প্রাইমারি স্কুল আছে ৪শ’ ছয়টি। ২০১৩ সালে সরকারিকরণ করা হয় ৪শ’ ৮৮টি। এছাড়াও বেসরকারি স্কুল আছে ৩৮টি, এনজিও পরিচালিত স্কুল আছে ১শ ৩৮টি এবং কিন্ডারগার্টেন আছে ২শ’ ৫৫টি। সদ্য সরকারিকরণ স্কুলগুলোর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের সংখ্যা বেশি।

school-pic1-jhenaidah

এ ছাড়া ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় পাঁচটি, কোটচাঁদপুর উপজেলায় তিনটি, ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় পাঁচটি, শৈলকুপা উপজেলায় ১২টি ও হরিণাকুন্ডু উপজেলায় ১৭টি ঝুঁকিপূর্ণ স্কুল রয়েছে। কালীগঞ্জ উপজেলার চাপালী সরকারি প্রাইমারি স্কুলের ছাদের বিম ভেঙে গেছে। শিক্ষার্থীরা তার নিচে ক্লাশ করছে।

ঝিনাইদহ জেলা প্রাইমারি শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান বলেন, কিছু স্কুল ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এসব স্কুলে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ স্কুল ভবনগুলো নতুন করে তৈরি করা হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 52 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
error: