দল থেকে পদত্যাগ করতে চান ক্ষুব্ধ শামীম ওসমান

Print

%e0%a6%a6%e0%a6%b2-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%a6%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%97-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%9a%e0%a6%be%e0%a6%a8-%e0%a6%95নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি এ কে এম শামীম ওসমান তার বাবা সাবেক এমপি প্রয়াত এ কে এম শামসুজ্জোহাকে জড়িয়ে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর আপত্তিকর
মন্তব্যের প্রতিবাদে দল থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি তার এ সিদ্ধান্তের কথা এরই মধ্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে অবহিত করেছেন। তবে ক্ষুব্ধ শামীম ওসমানকে আপাতত ওবায়দুল কাদের শান্ত করেছেন বলে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরলে তাকে এ বিষয়ে অবহিত করা হবে।
গতকাল সোমবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এ কে এম শামসুজ্জোহা সম্পর্কে অসত্য বক্তব্য ও মিথ্যাচারের প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন শামীম ওসমান। তিনি একপর্যায়ে দল থেকে তার পদত্যাগের সিদ্ধান্তের কথাও বলেছেন। এ সময় শামীম ওসমানকে আপাতত শান্ত করেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
গত সোমবার প্রধানমন্ত্রীর ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে দলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এ কে এম শামসুজ্জোহাকে জড়িয়ে গুরুতর আপত্তিকর মন্তব্য করেছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি তার বাবা নারায়ণগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত আলী আহমদ চুনকার সঙ্গে এ কে এম শামসুজ্জোহার তুলনা করে তার বিষোদ্গারও করেন।
এ নিয়ে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ ঘরানার রাজনীতিতে বিশ্বাসীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে বলে দলের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা সমকালকে জানিয়েছেন। অনেকেই কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে এর জরুরি প্রতিকার চেয়েছেন। তবে শামীম ওসমান দলীয় নেতাকর্মীদের শান্ত থাকতে বলেছেন। তবে নাসিক নির্বাচনের আগে সন্তোষজনক সমাধান না হলে নির্বাচনে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।
দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে ওসমানের এ বৈঠকের সময় নোয়াখালী শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু ও নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম উপদেষ্টা মফিজ উল্লাহ বিকম উপস্থিত ছিলেন। ওই সময় কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দলের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন ও দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ। দলের বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে সৌজন্য বৈঠকের পর ধানমণ্ডির কার্যালয়ে এসে শামীম ওসমানের সঙ্গে বৈঠক করেন ওবায়দুল কাদের।
এ বৈঠকের আলোচনা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শামীম ওসমান কাছে কিছুই বলতে চাননি। তবে আওয়ামী লীগ নেতাদের কয়েকজন জানিয়েছেন, শামীম ওসমান তার বাবা সাবেক এমপি প্রয়াত এ কে এম শামসুজ্জোহাকে নিয়ে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর অশোভন বক্তব্যের বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তিনি বৈঠকে বলেছেন, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত এ কে এম শামসুজ্জোহা একজন সৎ মানুষ ছিলেন। আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা এ সদস্যের রাজনৈতিক দক্ষতা ও যোগ্যতা ছিল প্রশ্নাতীত। নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে তার কোনো ধরনের দুর্নাম ছিল না। অথচ তাকে জড়িয়ে মিথ্যাচার করেছেন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তার অসত্য বক্তব্যের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তিনি পরিস্থিতি সামাল দিয়েছেন। নেতাকর্মীদের শান্ত করেছেন।
বৈঠকে শামীম ওসমান নাসিক নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে তার ভূমিকার প্রমাণ হিসেবে কয়েকটি খুদে বার্তা ওবায়দুল কাদেরকে দেখিয়েছেন। নাসিক নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে পাঠানো খুদে বার্তায় শামীম ওসমান বলেছেন, ‘প্রিয় আইভী, আপনার পরিকল্পনা আমাকে জানান। কখন মনোনয়নপত্র জমা দেবেন এবং এই বিষয়ে আমি কোনো সহযোগিতা করতে পারি কি-না বলবেন।’ আইভী এর কোনো জবাব দেননি।
এ দুই নেতার ঘনিষ্ঠজনরা জানিয়েছেন, দল থেকে পদত্যাগ করার বিষয়ে শামীম ওসমানকে আপাতত বিরত রেখেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হাঙ্গেরি থেকে দেশে ফেরার পর তার সঙ্গে দেখা করে শামীম ওসমান দল থেকে পদত্যাগের কথা জানাবেন। আগামীকাল বুধবার দেশে ফেরার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 250 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ