দুই মন্ত্রণালয়ের বৈরিতায় অনিশ্চিত পিএসসি-জেএসসি

Print

%e0%a6%a6%e0%a7%81%e0%a6%87-%e0%a6%ae%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a3%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a7%9f%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a7%88%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a7%9fজাতীয় শিক্ষানীতির আলোকে প্রাথমিক শিক্ষাকে অষ্টম শ্রেণিতে উন্নীত করার কাজ করছে সরকার। কিন্তু ইতোমধ্যে প্রাথমিকে চলু হওয়া প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিএসসি) থাকবে কি থাকবে না, অপরদিকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। একদিকে পিএসসি পরীক্ষা আগামীতে থাকবে কিনা। অপরদিকে জেসিডি পরীক্ষা কোন মন্ত্রণালয়ের অধীনে হবে তা নিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষামন্ত্রণালয়ের মধ্যে দেখা দিয়েছে বৈরিতা।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, দেশে বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৬৩ হাজার ৬০১। নতুন জাতীয়করণ করা হয়েছে ২৫ হাজার ২৪০টি। নতুন করে আরও ৬৩৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। রয়েছে পিটিআই-সংলগ্ন পরীক্ষণ বিদ্যালয় ৫৫টি। এসব ছাড়াও ১,৯৪৯টি নন-রেজি. সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২০৫৮টি সরকারি এবতেদায়ী মাদ্রাসা ও ১২,৪৮৬টি কিন্ডারগার্টেনসহ প্রাথমিক শিক্ষার জন্য প্রায় ১ লাখ ১০ হাজার প্রাথমিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সরকারি বিদ্যালয়ে বর্তমানে শিক্ষক রয়েছেন ৩ লাখ ২২ হাজার ৭৬৬ জন। কিন্তু চাহিদার তুলনায় বর্তমানে ঘাটতি রয়েছে ৩৫ হাজার।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, জাতীয় শিক্ষানীতিতে প্রাথমিক শিক্ষাকে উন্নীত করার কথা বলা থাকলেও ২০১৮ সালের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষাকে পুরোপুরি অষ্টম শ্রেণিতে উন্নীত করা সম্ভব নাও হতে পারে। কারণ এখনও আমরা এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা পাইনি। তবে আমাদের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর আবকাঠামোগত উন্নয়নের চেষ্টা করছি। যাতে করে অষ্টম শ্রেণি চালু করা যায়। শুধু চালু করলেই হবে না সেই অনুযায়ী জনবল নিয়োগেরও প্রয়োজন রয়েছে।
তিনি আরও বলেন, দেশের মাত্র ৭৬০টি প্রাথমকি বিদ্যালয় অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত উন্নীত করা হয়েছে। আমরা আমাদের কাজ করে যাচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, পিএসসি পরীক্ষা থাকবে কি থাকবে না তার সিদ্ধান্ত নেবে মন্ত্রিসভা। মন্ত্রিসভার বৈঠকে যে সিদ্ধান্ত হবে, সেই অনুযায়ীই কাজ করবো। কোনো সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা চলতে থাকবে।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী বলেন, এটা বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষামন্ত্রণালয় মন্ত্রিসভায় প্রস্তাব পাঠাবে। উনি (শিক্ষামন্ত্রী) ২০১৮ সালের মধ্যেই এটা বাস্তবায়ন হবে বলে আশা করেছেন। আমিও সেই আশাই করছি। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আন্তরিকতার অভাব আছে বলে তিনি মনে করেন না।
প্রাথমিককে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত করা হলে বন্ধ হয়ে যাবে এখনকার পঞ্চম শ্রেণির পিএসসি পরীক্ষা। নতুন পরীক্ষার নামকরণ হবে প্রাইমারি স্কুল সার্টিফিকেট (পিএসসি) পরীক্ষা। যা অষ্টম শ্রেণি শেষে নেয়া হবে। এটি নেবে ৯টি শিক্ষাবোর্ড।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক যুগ্মসচিব বলেন, অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়নের শিক্ষা কার্যক্রম বর্তমান ধারায় চলবে। যেসব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি আছে, তা অব্যাহত থাকবে। শুধু পরীক্ষাসহ শিক্ষা-সংক্রান্ত বিষয়গুলো দেখবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রাথমিক শিক্ষা যেহেতু বাধ্যতামূলক, তাই এখন সেটা উন্নীত করে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা হবে বাধ্যতামূলক। এ জন্য প্রয়োজনে আইন সংশোধন করা হবে। প্রাথমিক স্তরের শিক্ষাক্রমও শিগগিরই নতুনভাবে প্রণয়ন করা হবে।
যুগ্মসচিব আরও বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত করা হলেও আপাতত ক্লাস ও পরীক্ষা নেয়ার পদ্ধতি এখনকার মতোই চলবে। তবে যে ৭৬০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণি চালু করা হয়েছে, সেগুলোর শিক্ষকদের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আলাদা প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে কোনো পরিবর্তন হবে না।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান আরও বলেন, ‘আমরা চাই প্রাথমিক সমাপনী একটি হবে, আর তা অষ্টম শ্রেণিতে। অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষা শেষে আমরা শিক্ষার্থীদের সনদ দেব।’
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান, আমরাও চাই জেএসসি পরীক্ষার দায়িত্ব প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে দেয়া হোক। কিন্তু আমরা এ বিষয়ে তাদের বলেছিলাম তারা আগ্রহ দেখায়নি। চলতি বছরেরও বিষয়টি তাদের জানানো হয়েছিল।
শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, সম্প্রতি শেষ হওয়া জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা নেয়ার কথা থাকলেও (প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ) অপারগতা প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। ওই চিঠিতে এ পরীক্ষা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে নেয়ার জন্য জানানো হয়েছিল। এতেই বোঝা যায় তারা এ দায়িত্ব নিতে চায় না। আমাদের উপরে এ দায়িত্ব থাকলে আমরাই তা পরিচালনা করবো।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 46 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
error: