দেশ তো আমাদের অনেক দেয়, আমরা দেশকে কি দেই : ন্যান্সি

Print

%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b6-%e0%a6%a4%e0%a7%8b-%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%85%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%95-%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a7%9f-%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%b0জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত অনেক শ্রোতাপ্রিয় গান তিনি উপহার দিয়েছেন। বিশেষ করে সিনেমার গানে তৈরি করেছেন নিজের একটি স্বতন্ত্র শক্ত অবস্থান। মাঝে কেবল সিনেমার গানে ব্যস্ত থাকলেও এখন অ্যালবামেও নিয়মিত এ শিল্পী। স্টেজ, প্লেব্যাক, অ্যালবাম, টিভি অনুষ্ঠান-এই প্রতিটি ক্ষেত্রেই তিনি সরব। বিশেষ করে চলতি বছরে এসে যেন পুরোপুরি ছন্দে ফিরেছেন ন্যান্সি। তারই ধারাবাহিকতায় এ বছর সিনেমার গানের বাইরেও একক অ্যালবাম, দ্বৈত অ্যালবামসহ অনেক মিশ্র অ্যালবামেও গান গেয়েছেন। এ বিষয়ে ন্যান্সি বলেন, আসলে এ বছর অনেক কাজ করা হয়েছে। এটা সব মিলিয়ে হয়ে গেছে। যেমন অনেক অডিও কোম্পানির আগ্রহ ছিলো আমাকে নিয়ে কাজ করার। পাশাপাশি তারা এ বছর বিনিয়োগও করেছে বেশি অ্যালবামে। একটি ভালো অবস্থা বছরের প্রথম থেকেই ছিলো। সাউন্ডটেক থেকে আমার একক ‘ভালোবাসো বলেই’ প্রকাশ পেয়েছে। সিডি চয়েস থেকে বের হয়েছে দ্বৈত অ্যালবাম ‘ন্যান্সি উইথ স্টারস’সহ আরও কিছু অ্যালবাম। তাহলে কি আপনি মনে করছেন অডিও ইন্ডাস্ট্র্রি অবস্থা এখন ভালো? আর সে কারণেই বেশি কাজ করা হয়েছে? ন্যান্সি বলেন তাতো বটেই। তাছাড়া আমার সঙ্গে কথা ও কাজে কোম্পানিগুলোর মিলে গেছে। অডিও ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা বছরের প্রথম থেকেই ভালোর দিকে যাচ্ছিলো। যদিও এখন একটু ঢিমেতালে এগুচ্ছে। ধীরগতিটাও আমার মনে হয় কেটে যাবে। নতুন বছরে আবারও একটি শুভ সূচনা হবে বলেই আমার বিশ্বাস। আপনিতো তরুণ সুরকার ও সংগীত পরিচালকদের সঙ্গেই চলতি বছর বেশি কাজ করেছেন। কেমন লেগেছে? ন্যান্সি বলেন, সিনিয়র ও তরুণ সবার সঙ্গেই কাজ করেছি এ বছর। যেমন আমার একক অ্যালবামের সব গানের সুর ও সংগীত সিনিয়ররাই করেছেন। দ্বৈত অ্যালবামেও সিনিয়রদের সঙ্গে গেয়েছি। আবার তরুণদের মধ্যে ইমরান, মিলন, এমএমপি রনি, রেজওয়ানদের সঙ্গেও কাজ করেছি। তরুণরা খুব ভালো করছে। তারা এক্সপেরিমেন্ট যেমন করছে, পাশাপাশি বানিজ্যিক বিষয়টিও মাথায় রাখছে। সব মিলিয়ে তাদের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা দারুণ। সামনেও মেধাবি তরুণদের সঙ্গে কাজ করতে চাই। সিনেমার গানের কি খবর? ন্যান্সি বলেন, প্লেব্যাক আগের মতোই চলছে। চলতি বছর বেশ কিছু ছবিতে গেয়েছি। কিছু ছবি মুক্তি পেয়েছে, কিছু মুক্তির অপেক্ষায় আছে। সামনেও দু-তিনটি ছবিতে গানের কাজ করার কথা রয়েছে। বিনা পারিশ্রমিকে একটি দেশের গান করছেন। স্নেহাশীষ ঘোষের কথায় এ গানটির সুর করেছেন মিলন। আর সংগীত করেছেন এমএমপি রনি। ‘সব কিছুর উর্দ্ধে দেশ’ শিরোনামের এ গানের চিন্তা এলো কিভাবে? ন্যান্সি বলেন, আসলে যখন সেরা গায়িকা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলাম তখনই এরকম একটা কিছু করার চিন্তা মাথায় এসেছিলো। কারণ দেশতো আমাদের অনেক দেয়, আমরা দেশকে কি দেই? সেই চিন্তারই প্রতিফলন ঘটতে যাচ্ছে এ গানটি করার মধ্যে দিয়ে। আর যে কোন দেশের গানই আমি বিনা পারিশ্রমিকে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর আগেও একটি দেশের গান করেছিলাম বিনা পারিশ্রমিকে। এটা আসলে দেশের প্রতি ভালোবাসা থেকেই করা। স্টেজ শো কি করছেন? ন্যান্সি বলেন, স্টেজ শো মধ্যে অনেক কম হয়েছে। এখন আবার কিছুটা বেড়েছে। শীত মৌসুম আসার ফলে স্টেজ আয়োজনের সংখ্যা বাড়ছে। আমিও স্টেজ শো করছি। আশা করছি স্টেজের সংখ্যা সামনে আরও বাড়বে। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। সংসার কেমন চলছে? ন্যান্সি বলেন, অনেক ভালো চলছে। দুই মেয়ে রোদেলা ও নায়লাকে নিয়েই আমার সময় চলে যায়। আর স্বামীও আমাকে সব কাজে উৎসাহ দেন, সহযোগিতা করেন। এটা অনেক বড় পাওয়া। সব মিলিয়ে বেশ ভালো আছি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 88 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ