পরকীয়া ফাঁস, মায়ের হাতে মেয়ে খুন!

Print

%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a6%95%e0%a7%80%e0%a7%9f%e0%a6%be-%e0%a6%ab%e0%a6%be%e0%a6%81%e0%a6%b8-%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a7%9f%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%ae%e0%a7%87

হত্যা না আত্মহত্যা? মুর্শিদাবাদের বেলডাঙার মক্রামপুর গ্রামের সুরাইয়া খাতুনের (১৪) মৃত্যুকে ঘিরে এমনই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মনে। মৃত সুরাইয়া বেলডাঙার হরিমতি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।
জানা যায়, রবিবার রাত দেড়টার দিকে আচমকা এক চিৎকার ভেসে আসে। সেই আওয়াজ শুনে প্রতিবেশিরা গিয়ে দেখেন ঘরের মধ্যে সুরাইয়া গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলছে। পাশে দাঁড়িয়ে সুরাইয়ার মা, বোন এবং ভাই। প্রতিবেশিরা দড়ি কেটে তাকে নিচে নামিয়ে আনেন। সুরাইয়াকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় তার মা তাঞ্জিলা বিবি বাধা দেন বলে অভিযোগ। প্রতিবেশীরা জানিয়েছে, সেই সময় ওই কিশোরীর মা বলেন, ঈশ্বরের জিনিস, ঈশ্বর নিয়ে নিয়েছেন। ওকে কোথাও নিয়ে যাওয়ার দরকার নেই। এরপরেই সবার মনে সন্দেহ দানা বাঁধে। ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এলাকাবাসী। তাঞ্জিলা বিবিকে ধরে মারধরও করা হয়।
পুলিশ জানিয়েছে, তাঞ্জিলা বিবির স্বামী কেরলে রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। বছরে দু’এক বার বাড়িতে আসেন। মক্রামপুরে দুই মেয়ে এবং এক ছেলেকে নিয়ে থাকেন তিনি। সুরাইয়ার বোন এবং ভাই যদিও জানিয়েছে, তাদের বোন নিজেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মা তাঞ্জিলা বিবিরও দাবি, এক কিশোরের সঙ্গে সুরাইয়ার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। এ কথা জানতে পেরে তিনি মেয়েকে বকাবকি করেন। এরপরেই নিজে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে সে। যদিও এ কথা মানতে নারাজ প্রতিবেশিরা। তাদের একাংশের অভিযোগ, স্বামী কাছে না থাকায় অন্য একজনের সঙ্গে বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তাঞ্জিলা বিবি। মেয়ে সুরাইয়া সে কথা জেনে যাওয়ায় তাকে খুন হতে হয়। এখন তার মা আত্মহত্যার মিথ্যে গল্প বানিয়েছেন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঞ্জিলা বিবিকে আটক করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই জানা যাবে ঘটনাটা আসলে কি!

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 66 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
error: