‘পরীর মাঝে শাবানা ম্যাডামকে খুঁজে পাচ্ছি’

Print

%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a7%80%e0%a6%b0-%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%9d%e0%a7%87-%e0%a6%b6%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be-%e0%a6%ae%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%a1%e0%a6%beজনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূরকে নিয়ে ‘প্রেমের অহংকার’, ‘অধিকার চাই’, ‘ভুলনা আমায়’, ‘ভালোবাসার দুশমন’, শিরোনামের জনপ্রিয় সব সিনেমা তৈরি করেছেন গুণী নির্মাতা ওয়াকিল আহম্মেদ।
এবার তিনি চিত্রনায়িকা পরীমনিকে নিয়ে নির্মাণ করেছেন ‘কত স্বপ্ন কত আশা’ সিনেমা। সিনেমাটি গতকাল আনকাট সেন্সর ছাড়পত্র পায়। সেন্সরে প্রদর্শনের পর থেকে প্রশংসায় ভাসছেন নায়িকা পরী। তার অভিনয় মুগ্ধ করেছে বোর্ডের সদস্যদের। এছাড়া সিনেমাটির পরিচালক ওয়াকিল আহম্মেদ জানান, পরীমনির মাঝে তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানাকে খুঁজে পেয়েছেন।
এ প্রসঙ্গে পরিচালক ওয়াকিল আহম্মেদ বলেন, “গতকাল ২৩ নভেম্বর ‘কত স্বপ্ন কত আশা’ সিনেমাটি আনকাট সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা সিনেমাটি দেখে প্রশংসা করেছেন। তারা বলেছেন, ‘সাম্প্রতিক কালের একটা ভালো সিনেমা দেখেছি।”
এ সিনেমায় কি আছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এ সিনেমায় সুখের গল্প, দুঃখের গল্প, ভালোবাসার গল্প আছে। এর গানগুলো সুন্দর, সিনেমাটোগ্রাফিও ভালো হয়েছে। দর্শক একটা মৌলিক গল্প পাবে এ সিনেমায়। সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টা লক্ষণীয় তা হলো পরীমনির অভিনয়। বাপ্পিও ভালো অভিনয় করেছেন। এ বিষয়গুলো সেন্সরবোর্ডের চোখে পড়েছে।’
‘পরীমনি কল্পনাই করতে পারবে না সে কতটা ভালো অভিনয় করেছে। এই শিল্পীটার যথাযথ ব্যবহার আমাদের চলচ্চিত্রে হয়নি। তার বাহিরের সৌন্দর্যটাকেই আমরা নির্মাতারা হয়তো বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। কিন্তু তার সুন্দর চেহারার ভেতরে সুন্দর অভিনয় গুণও রয়েছে এটা এ সিনেমার মধ্যে দর্শক শতভাগ খুঁজে পাবেন। মনে হবে, পরীমনি যে চরিত্রে অভিনয় করেছেন ওই চরিত্রের জন্যই পরিমনির জন্ম হয়েছে। চরিত্রের সঙ্গে পরী অনেক সুন্দর ভাবে মিশে যেতে পেরেছে। এতদিন পরীর সঠিক ব্যবহার আমরা করতে পারিনি। আসলে ওর অভিনয়ের ব্যাপারে গুরুত্ব না দিয়ে ওর সৌন্দর্যর ব্যাপারে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি।’, বলেন এ নির্মাতা।

তিনি আরো বলেন, ‘সিনেমার ভেতরে নাটকীয় কিছু বিষয় থাকে, যেখানে শিল্পী হাসবেন আবার কাঁদবেন। যেমন ধরুন-শাবনূর, শাবানা, ববিতা, কবরী ম্যাডামরা হাসলেও ভালো লাগতো আবার কাঁদলেও ভালো লাগতো। পর্দায় সবাইকে আবার কাঁদলে ভালো লাগে না। এই জায়গাটায় পরীকে আমার ভালো লেগেছে।’
‘প্রথম যখন পরীর সঙ্গে কান্নার দৃশ্যে কাজ করি তখন বিষয়টি আমার নজরে আসে। পরী হিন্দু মেয়ে আর বাপ্পি মুসলমান ছেলে। ওর সঙ্গে প্রেম করতে গিয়ে জানাজানি হয়ে যায়। এ ধরনের একটা নাটকীয় অবস্থায় পরী অপূর্ব অভিনয় করেছেন। আমার কাছে মনে হচ্ছে আবার সেই শাবানাকে খুঁজে পাচ্ছি। পরীর মাঝে আমি শাবানা ম্যাডামকে খুঁজে পাচ্ছি। তাদের কাতারের একজন নায়িকা ঢাকাই চলচ্চিত্রে এলো বুঝি। পরীকে দিয়ে সব ধরনের নাটকীয় সিনেমা নির্মাণ সম্ভব। সে ভালো করবে।’, বলেন এই নির্মাতা।
ওয়াকিল আহম্মেদ বলেন, ‘পরীর অভিনয় দেখে নতুন আরো একটি সিনেমায় পরীকে নিয়ে কাজ শুরু করব। খুব শিগগিরই এ সিনেমার নাম ঘোষণা করব।’
সিনেমায় পরীমনির চরিত্র কেমন হবে এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এ সিনেমায় পরী একজন হিন্দু মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করছে। যার স্বপ্ন দেশের একজন ভালো নামকরা সংগীত শিল্পী হবেন, গায়িকা হবেন। গান করতে গিয়ে তাকে বিভিন্ন প্রতিকূলতায় পড়তে হয়। এভাবেই এর গল্প এগিয়ে যায়।’
এ সিনেমায় পরীর বিপরীতে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী। এ ছাড়াও অভিনয় করেছেন আহমেদ শরীফ, রেহানা জলি, রেবেকা, ডিজে সোহেল প্রমুখ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 59 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ