প্রাথমিক সমাপনীর প্রশ্ন নিয়ে ইন্টারনেটে তোলপাড়

Print

%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%a5%e0%a6%ae%e0%a6%bf%e0%a6%95-%e0%a6%b8%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%aa%e0%a6%a8%e0%a7%80%e0%a6%b0-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%b6%e0%a7%8d%e0%a6%a8দেশের কয়েকটি স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি-ঘর ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় যখন আলোচনা-সমালোচনা তুঙ্গে, তখনই চলমান প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় সম্প্রদায়িক প্রশ্ন করার অভিযোগ উঠেছে। আর সেই প্রশ্ন ইন্টারনেটে ভাইরাল হতেই শুরু হয়েছে নতুন আলোচনা-সমালোচনা ও বিতর্ক।
২০১৬ সালের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রথম দিন রবিবার ইংরেজি বিষয়ের পরীক্ষা ছিল। আর এই পরীক্ষার একটি প্রশ্ন জন্ম দিয়েছেন নতুন এই বিতর্কের। প্রশ্নপত্রে সৈকত ইসলাম নামে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রের বাবা-মা, তাদের পেশা ও তাদের অবস্থান নিয়ে একটি অনুচ্ছেদ দেয়া হয়। পরে সেই অনুচ্ছেদের আলোকে পরীক্ষার্থীদের বেশ কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দিতে বলা হয়।
এসব প্রশ্নের একটিতে বলা হয় সৈকত কোন ধর্মের অনুসারী? সঠিক উত্তর দেওয়ার জন্য বিপরীতে চারটি অপশন দেয়া হয়। এগুলোতে ধর্ম হিসেবে মুসলিম, হিন্দু, খ্রিস্টান ও বৌদ্ধ ধর্মের উল্লেখ ছিল।
এই প্রশ্নের স্ক্রিনশট দেয়া ছবি পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে উঠে। এরপরই প্রশ্ন তৈরিকারী শিক্ষকদের প্রতি ধিক্কার জানানো হয় বিভিন্ন পোস্টে। অভিযোগ ওঠে অল্প বয়সে শিশুদের মধ্যে ধর্মীয় বিভাজন সৃষ্টিতে এমন প্রশ্ন করা হয়েছে। ব্যবহারকারীরা আরও অভিযোগ করেন- ছোট বেলাতেই শিক্ষার্থীদের মনে সাম্প্রদায়িকতার বিষ ঢুকিয়ে দেয়া হচ্ছে। আর এ কারণেই জঙ্গীবাদের সৃষ্টি হচ্ছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 68 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ