প্রেমিকার কাছে কী চাই?

Print
ছবি: সম্পর্কে পুরুষ ভালোবাসা খোঁজে। প্রতীকী ছবি।
অনেক পুরুষই প্রতিশ্রুতি দিতে ভয় পান। অনেকে আবার প্রতিশ্রুতি দেন। এর পেছনে যথাযথ কিছু কারণও থাকে। সম্পর্কের এ বাঁধনে জড়ানোর পেছনে প্রচলিত কিছু কারণ আছে বলে ধরে নেওয়া হয়। কিন্তু প্রচলিত ধারণার বাইরে যেসব কারণ আছে, তা জানলে অনেকের চোখ কপালে উঠতে পারে। কী কী কারণ হতে পারে, তা জেনে নিন:

স্পর্শের এক আকাঙ্ক্ষা: অন্তরঙ্গ হওয়ার বিষয়টি পুরুষের পছন্দ। এটাকে শারীরিক সম্পর্কের সঙ্গে মেলানো ঠিক নয়। সাধারণ স্পর্শেই পুরুষের মন গলে যেতে পারে। একটু আদর, একটু পেছন থেকে জড়িয়ে ধরা, চুল নিয়ে খেলা করা বা একটু চিবুক ছুঁইয়ে দিতে পারলেই হলো। এতে মনে একসঙ্গে থাকার, আবেগ আর খেয়াল রাখার একটু অনুভূতি পুরুষের মনে জমা হয়।

বাসনা: পুরুষের মনে সঙ্গীকে নিয়ে একটা বাসনা সব সময়েই কাজ করে।

মানসিক পরিপূর্ণতার অনুভূতি: অনেক নারী হয়তো বিষয়টিতে একমত নন। কিন্তু পুরুষেরা সম্পর্কে জড়ালে মন থেকে এর সঙ্গে যুক্ত হয়ে যান। বিশাল বপুর পুরুষের অন্তরেও ছোট্ট এক শিশুর বাস। সাধারণত পুরুষ তাঁদের আবেগের দিকটা কাউকে সচরাচর জানাতে পারেন না। কিন্তু সম্পর্কের বাঁধনে যখন জড়িয়ে যান, তখন সঙ্গীর কাছে কোনো বিবেচনা না করেই মেলে দেন মনের ডানা।

শাশ্বত সহচর: পুরুষ যখন সম্পর্কে জড়ান, তখন যেন তিনি দিন-রাত সব সময় সঙ্গীকে নিয়ে ভাবতে থাকেন। তখন তিনি মানসিকভাবে অনেকটা পরিপূর্ণ হন। খেলা, মুভি, গল্পের এক সঙ্গী পেয়ে যান। একাকিত্ব কাটে।

গোছালো: একলা পুরুষের ঘর অগোছালো-এলোমেলো থাকে। সঙ্গী এলে তাঁর নিজের প্রতি যত্ন বেড়ে যায়। মনে হয়, তাঁর খেয়াল করার কেউ আছে। দুজন মিলে জীবনযাপনে গোছালো হয়ে উঠতে পারার আকাঙ্ক্ষা থাকে।

হৃদয়ে কেউ রাখুক সযত্নে: বয়স যতই বাড়ুক না কেন কেউ একজন তাঁর যত্ন নেবে, পুরুষেরা তা চান। সময় যখন খারাপ যায়, অফিসে ঝামেলা যায়, তখন সঙ্গী তাঁর মেজাজ খারাপ দূর করবেন, পুরুষ তা প্রত্যাশা করেন।

সুস্পষ্ট মতামত: সততা সবাই ভালোবাসে। বাইরে যতই কঠিন মনে হোক না কেন, খোলামেলা আন্তরিক আলাপ যে-কারও হৃদয় হরণ করতে পারে। নতুন চুলের কাট, নতুন জিনস বা যেকোনো আলাপচারিতায় সদুপদেশ কোন প্রেমিক না পেতে চায়?

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 57 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ