ফিদেল ক্যাস্ট্রো আমার দ্বিতীয় বাবা : ম্যারাডোনা

Print

%e0%a6%ab%e0%a6%bf%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b2-%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a7%8b-%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%a6%e0%a7%8dকিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল ক্যাস্ট্রোর মৃত্যুতে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন সর্বকালের সেরা ফুটবলার হিসেবে স্বীকৃত দিয়েগো ম্যারাডোনা। আর্জেন্টাইন এই ফুটবল ঈশ্বর ফিদেল ক্যাস্ট্রোকে তার ‘দ্বিতীয় বাবা’ মনে করতেন।
মাদকাসক্ত জীবন থেকে ফিরে আসার ক্ষেত্রে ফিদেল ক্যাস্ট্রো অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন বলে জানান ম্যারাডোনা। নিজের মা-বাবার মৃত্যুর পর এটা তার জীবনের সবচেয়ে দুঃখের ঘটনা বলে জানান তিনি।
ম্যারাডোনা বলেন, ‘ফিদেল ক্যাস্ট্রোর মৃত্যুর কথা যখন শুনি তখন অনেক কেঁদেছি। কারণ তিনি ছিলেন আমার দ্বিতীয় বাবা। আমি কিউবায় চার বছরের মতো ছিলাম। ওই সময় ফিদেল আমাকে রাত দুটায় ফোন করে বিশ্ব রাজনীতি ও খেলাধুলার বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা করতেন। এবং আমি খুব আগ্রহ নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলতাম।’
টিওয়াইসি স্পোর্টসের সঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে দিয়েগো ম্যারাডোনা স্মরণ করেন, ‘কিউবা আমার জন্য অনেকগুলো দরজা খুলে দিয়েছিল যখন আমার দেশ সবগুলো দরজা বন্ধ করে দিচ্ছিল, দেশের ক্লিনিকগুলো আমার চিকিৎসা করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছিল।’
ম্যারাডোনা আর্জেন্টিনা থেকে কিউবায় গিয়েছিলেন ২০০০ সালে। তখন তিনি অতি মাত্রায় মাদকাসক্ত এবং প্রায় মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে ছিলেন। কীভাবে ফিদেল ক্যাস্ট্রো তাকে মাদক থেকে ফিরিয়ে আনেন সে কথা স্মরণ করে বলেন, ‘আমি কৃতজ্ঞ যে ফিদেল মাদকের ক্ষতিকর দিক নিয়ে, আমার ওপর এর প্রভাব নিয়ে কথা বলেছিলেন। মাদকের কারণে আমি কী কী খারাপ কাজ করে যাচ্ছিলাম সেগুলোর কথা তুলেছিলাম। আমি তার কথা শুনেছিলাম। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ, আমি পুনর্বাসিত হয়েছি। আমি আমার সবচেয়ে খারাপ সময়গুলো পার হয়ে এসেছি।’
সাবেক এই ফুটবল তারকা ফিদেল ক্যাস্ট্রোর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য কিউবা যাচ্ছেন। কিউবার বর্তমান প্রেসিডেন্ট রাউল ক্যাস্ট্রো ও কিউবার জনগণের পাশে এই শোকের মুহূর্তে থাকতে চান তিনি। কারণ তিনি মনে করেন, ‘কিউবার জনগণ আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে।’

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 64 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ