ব্যবসা করবেন জানেন না কার কাছে, কিভাবে, কি বিক্রি করবেন…

Print

ব্যবসা করবেন। সফল উদ্যোক্তা হবেন। সংকল্পও আপনার দৃঢ়। জীবনে বড় হতেই হবে। কিন্তু ব্যবসা সম্পর্কে না জেনে না বুঝে কিভাবে সফল হবেন। কোন ব্যবসার প্রাণ হচ্ছে সেলস বা বিক্রয়। কিন্তু বিক্রয় সম্পর্কে আমাদের জ্ঞান খুবই সল্প। সেই সাথে বিক্রয় সম্পর্কিত কৌশলগত জ্ঞানের ব্যাপক অভাব।

ব্যবসার শুরুর আগেই চিন্তা করতে হয় পন্য বা সেবা কি হবে সে সম্পর্কে। সেই সাথে কার কাছে বিক্রি করবেন তাও আপনাকে নির্দিষ্ট করতে হবে। সে সম্পর্কিত বিষয় নিয়েই চলুন জানার চেষ্টা করি উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকমের সাথে।

আপনার ব্যবসায়ের পন্য বা সেবা কি হবে তা সর্বপ্রথমে নির্ধারন করতে হবে। ধরুন আপনি কম্পিউটার বা ইন্টারনেট সেবার ব্যবসা করতে চান। আর এই পন্য বা সেবা আপনি কোথা থেকে কিভাবে সংগ্রহ করবেন সে সম্পর্কে পূর্ণ জ্ঞান থাকতে হবে। চাল ডাল সরবরাহকারীর নিকট গিয়ে আপনি কম্পিউটার বা ইন্টারনেট এর ব্যান্ডউইথ ক্রয় করতে চাইলে নিশ্চয় পাবেন না। সুতরাং আপনাকে আপনার ব্যবসায়িক পন্য ক্রয়ের সঠিক স্থান সম্পর্কে জানতে হবে। সেই সাথে পণ্যের মান এবং মূল্য সম্পর্কেও থাকতে হবে স্পষ্ট ধারনা।

আবার বিক্রয়ের ক্ষেত্রেও আপনাকে চিন্তা করতে হবে ক্রেতার অবস্থান ও সামর্থ্যকে সেই সাথে পন্য ব্যবহারকারীর বয়সও বিবেচনায় রাখতে হবে। আপনি যদি বাচ্চাদের ডায়াপার উৎপাদন ও বিক্রয় করতে চান তাহলে আপনাকে শিশুদের জন্য উপযোগী ব্যবহার্য্য ডায়াপার তৈরী করতে হবে। বড়দের জন্য ডায়াপার তৈরী করলে তা বাজারে নিশ্চয় কেউ কিনবে না।

ব্যবসায়িক পন্য নির্বাচনের সাথে আপনাকে নির্ধারন করতে হবে আপনার পণ্যের ক্রেতা কে হবেন। অর্থাৎ আপনার পণ্য কার নিকট বিক্রয় করবেন সেটা। আপনার পন্য যদি ইয়ং গ্রুপকে কেন্দ্র করে হয় তাহলে আপনার সর্বোচ্চ চেষ্টা রাখতে হবে আপনার পন্যটি তাদের কাছে বিক্রয় করা। আর তার জন্য আপনার বিক্রয় কৌশল সাজাতে হবে। আবার শিশু কিংবা বৃদ্ধ কেন্দ্রিক পন্য উৎপাদন করলে আপনার টার্গেট গ্রুপের জন্য আলাদা বিক্রয় কৌশলও নিতে হতে পারে।

আপনার পন্যের ক্রেতার অবস্থান ও শিক্ষার ধাপ বিবেচনা করে পন্য পৌছানোর জন্য পরিবহন ও বিজ্ঞাপন কৌশল নির্ধারন করতে হবে। আপনার পন্যের ক্রেতা শহর কিংবা গ্রাম কোথায় থাকে তা জানতে হবে। আপনার পন্যের যে ক্রেতা হবে তার শিক্ষার ধাপ কোন পর্যায়ে সেটাও জানতে হবে যেমন: সে অশিক্ষিত, সল্পশিক্ষিত, শিক্ষিত কিংবা উচ্চশিক্ষিত কোন পর্যায়ের তা বিবেচনা করে পন্যের বিজ্ঞাপন কৌশল প্রয়োগ করতে হবে। না হলে বিজ্ঞাপনের আবেদন আপনার কাংখিত ব্যাক্তিকে পন্য ক্রয়ে প্রভাবিত নাও করতে পারে।

আপনার পন্যের ক্রেতার লিঙ্গ বিবেচনা করতে হবে কিছু কিছু ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে। পোশাকের মত কিছু পন্য আছে যার জন্য এ বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শুধুমাত্র পন্যের মধ্যে বৈচিত্র নয় পণ্যের ডিজাইন অথবা পণ্যের মোড়কের রংয়ের ক্ষেত্রেও এর প্রভাব চোখে পড়ার মত।

আপনার ব্যবসায়ের পন্যের গুনাগুন আর মানের সাথে প্রতিযোগী ব্যাবসায়ীদের পণ্যের গুনাগুন ও মানের মধ্যে বাড়তি কি পার্থক্য আছে সেটিও কিন্তু আপনার ক্রেতা যাচাই কেরতে ভুল করবে না। সুতরাং আপনাকে বাজারের প্রতিযোগীতা মোকাবেলা করার জন্য সেই সাথে বাজারে দীর্ঘমেয়াদে টিকে থেকে ব্যবসা চালিয়ে রাখতে অবশ্যই আপনার পন্যমান ও পন্যমূল্যের সর্বোত্তমটি আপনাকে দিতে হবে।

আপনার পণ্যের বিক্রয় বাড়াতে এবং দীর্ঘ মেয়াদে আপনার পন্য বা সেবার প্রতি আনুগত্য আনতে আপনাকে প্রতিযোগী থেকে বাড়তি কৌশল নিয়ে এগিয়ে থাকতে হবে সবসময়। সেই সাথে প্রতিযোগীতা মোকাবেলার কৌশল সম্পর্কেও বিস্তরিত জানতে হবে আপনাকে। শুধু পন্য বিক্রয় করে মুনাফা পকেটে নিলেই কিন্তু কাজ শেষ নয়। আপনার কাছ থেকে পন্য ক্রয় করে কতটুকু সন্তুষ্ট তা জানার চেষ্টা করতে হবে সেই সাথে পণ্যের সুবিধা-অসুবিধা সমূহ জানার চেষ্টা করতে হবে এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থাও গ্রহন করতে হবে।

এ বিষয় সমূহ মাথায় রেখে সে অনুযায়ী পন্য বিক্রয়ে নামলে আশা করা যায় ভাল করতে পারবেন। শুভকামনা রইল সকলের জন্য।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 127 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ