মাদ্রাসাছাত্রীর ঠোঁটে কলেজছাত্রের কামড়

Print

%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%9b%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a7%80%e0%a6%b0-%e0%a6%a0%e0%a7%8b%e0%a6%81%e0%a6%9f%e0%a7%87-%e0%a6%95%e0%a6%b2যশোরের চৌগাছায় জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (জেডিসি) দিতে আসা এক ছাত্রীর ঠোঁটে কামড় দিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে এক কলেজছাত্র।
মঙ্গলবার সকাল নয়টার দিকে চৌগাছা কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।
উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের কাঁদবিলা গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে কলেজ ছাত্র সাগর হোসেন মেয়েটিকে কামড় দিয়ে পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় চৌগাছা ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র কলেজছাত্র শিহাব উদ্দিনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে সাগর হোসেন ও তার সহযোগী একই গ্রামের রকমান আলীর ছেলে আলামিন হোসেন পালিয়ে যায়।
চৌগাছার মাকাপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার তরিকুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকাল নয়টার দিকে এক ছাত্রী জেডিসি বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য চৌগাছা কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে অবস্থান করছিল।
এসময় নারায়ণপুর ইউনিয়নের কাঁদবিলা গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে কলেজ ছাত্র সাগর হোসেন মেয়েটিকে জাপটে ধরে ঠোঁটে কামড় দিয়ে পালিয়ে যায়।
পরীক্ষার্থীর চিৎকারে কেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশ সাগরের সহযোগী শিহাব উদ্দিনকে আটক করলেও সাগর হোসেন এবং তার অপর সহযোগী আলামীন হোসেন পালিয়ে যায়।
মাদ্রাসা সুপার আরও বলেন, মেয়েটি চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। সে পরীক্ষায়ও অংশগ্রহণ করেছে। তবে মামলার বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।
আটক শিহাব উদ্দিন সাংবাদিকদের জানিয়েছে, সে নয়, মেয়েটিকে কামড়ে দিয়েছে তার বন্ধু সাগর।
চৌগাছা থানার ডিউটি অফিসার এসআই দেবাশীষ জানান, আটক ছেলেটি এখন থানা হাজতে রয়েছে। কলেজ থেকে তার শিক্ষকরা এসেছিলেন। তারা সবকিছু শুনেছেন। ছেলেটির বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এটা এখনই বলা যাচ্ছে না।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 66 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ