রাজশাহীতে দুই স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা : বিপ্লব মাস্টার গ্রেফতার

Print

bip

মাসুদ রানা রাব্বানী: রাজশাহীর মতিহার থানার শাহাপুরে সপ্তম শ্রেণীর দুই ছাত্রীর এক ঘরে আত্মহত্যার ঘটনায় বিপ্লব মাস্টারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে প্ররোচনার অভিযোগে মতিহার থানায় মামলা দায়ের করেন আত্মহত্যাকারি শিশু উম্মে মারিয়া সম্পার মা শরিফা বেগম। মামলার বিবরনে জানা যায়, বেলঘরিয়ার পশ্চিমপাড়া এলাকার মোঃ সেকেন্দার আলীর ছেলে বিপ্লব শম্পাকে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়া অবস্থা থেকে ভালবাসতো। কিন্তু কিছুদিন পূর্বে তার অন্য এক মেয়ের সাথে সম্পর্ক হওয়ায় শ্পাকে এড়িয়ে চলতো এবং বিভিন্ন ভাবে অপমান করতো। প্রেম প্রত্যক্ষান করায় সম্পার সম্মানহানি হয়। এতে সম্পা সবার অজান্তে গত ১৫ নভেম্বর বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে সাড়ে ৫টার মধ্যে গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করে। এ বিষয়ে, মতিহার থানায় ২০০০ সনের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের (সং/০৩) এর ৯(ক) ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। মামলা নং-২২, তাং-১৭/১১/২০১৬ইং,। তবে বিপ্লব জানায়, শম্পার সাথে তার কোন প্রকার প্রেমের সম্পর্ক ছিল না বরং শম্পা তাকে এক তরফা ভালবেসেছে যহা বিপ্লব জানতো না। বিপ্লব রাজশাহী সিটি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র এবং স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষক বিপ্লব। শুক্রবার বিপ্লবকে আদালাতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে বলে থানা সূত্রে জানা যায়। অপর দিকে বন্যার বাবা নাজমুল ইসলাম বাদি হয়ে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে মামলা করেছেন। এ মামলায় তিনি একই এলাকার কাদের মোল্লার ছেলে মুন্নাকে আসামী করেছেন বলে জানা গেছে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। তবে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এ বিষয়ে, ওসি হুমায়ুন কবীর জানান, সম্পা ও বন্যার লাশ দাফনের পর গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে তারা থানায় এসে মামলা দায়ের করেছেন। মামলা দায়েরের পর পরই পুলিশ বিপ্লব মাস্টারকে গ্রেফতার করেছে। আসামী মুন্নাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার বিকেলে শাহাপুর গ্রামের সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী সম্পা ও বন্যা এক ঘরে আত্মহত্যা করে। বুধবার তাদের ময়না তদন্ত শেষে পাশাপাশি কবর দেয়া হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে এঘটনায় দুটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়।

 

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 76 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ