সাদার্ন ইউনিভার্সিটির ১৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

Print

সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’র ১৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করছে ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ। সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার ছিল আলোচনা সভা, কেককাটা, সাদার্ন ট্যালেন্ট এওয়ার্ড প্রতিযোগিতা, জাতিসংঘের একাডেমি ইমপেক্টের অংশ ও অনুপ্রেরণায় তারুণ্য উৎসব এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা আয়োজন ।

ইউনিভার্সিটি হল রুমে কেক কেটে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি সাদার্ন ট্রাস্টি বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও বিশিষ্ট শিল্পপতি জনাব আব্দুস সালাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিভার্সিটি উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা, উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা জনাব সরওয়ার জাহান, অনুষ্ঠানের সভাপতি উপ-উপচার্য প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার এম আলী আশরাফ, দৈনিক আজাদীর সহযোগী সম্পাদক কবি রাশেদ রউফ, সাবেক ভিসি এ.জে.এম নুরুদ্দীন চৌধুরী, সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শরীফুজ্জামান, রেজিস্ট্রার ড. মনতাজুল ইসলাম চৌধুরী, ব্যবসা প্রশাসন বিভাগের ডিন প্রফেসর ড. আ ন ম আবদুল মোক্তাদীর, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান ড. ইসরাত জাহান, বিভিন্ন বিভাগের উপদেষ্টা, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুস সালাম বলেন, শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় সাদার্ন এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরাই আমাদের এগিয়ে চলার প্রেরণা। শিক্ষার্থীদের জ্ঞান অর্জনের জন্য স্থায়ী ক্যাম্পাসসহ যাবতীয় সুযোগ সুবিধা প্রদানে সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বদ্ধপরিকর আর এ লক্ষ্যে কাজ করছি আমরা। আমাদের সবার একটাই লক্ষ্য সাদার্নের সুনাম বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া।

উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা বলেন, সাদার্ন শিক্ষার গুণগত মান ও বিশ্বমানের শিক্ষায় বিশ্বাসী। গুণগত শিক্ষার মাধ্যমে আমরা শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে চাই। গত ১৪ বছরে বছরে আমাদের উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জিত হয়েছে।

সরওয়ার জাহান বলেন, দেখতে দেখতে সাদার্ন ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠার ১৫তম বার্ষিকীতে উপনীত হলো। আজ উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠান হিসেবে সাদার্ন ইউনিভার্সিটি দেশব্যাপী পরিচিত নাম। কিন্তু সাদার্ন এর এই পথ চলা এত সহজ ছিল না। নানারকম ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে সাদার্ন আজকের এই সুপরিচিত অবস্থানে।

কবি রাশেদ রউফ বলেন, তরুণরাই এগিয়ে নেবে দেশকে। স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণে তাদের নেতৃত্বই হবে আগামীর প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা । তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাত ধরেই অর্জিত হবে বাংলাদেশের কাঙ্খিত উন্নয়নের লক্ষ্য।

পুরো অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন সাধারণ শিক্ষা বিভাগের প্রধান ড. শাখাওয়াত উল্লাহ চৌধুরী

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 51 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ